বুধবার সকালটা পাকিস্তান ক্রিকেটার কাছে শাপ মুক্তির সকাল। দীর্ঘ দশটা বছর পর পাকিস্তানে ফিরল টেস্ট ক্রিকেট। বর্তমান পাক দলের সদস্যরা কেউ কোনও দিন ঘরের মাঠে নিজেদের সমর্থদের সামনে টেস্ট ম্যাচ খেললেনি। ঘরের মাঠে টেস্ট খেলার অনুভূতি বা গর্বটা কেমন হয় সেটা বুধবার টের পেলেন পাক ক্রিকেটাররা। ২০০৯ সালে যে শ্রীলঙ্কা দলের ওপর সন্ত্রাসবাদী হামলা হয়েছিল সেই শ্রীলঙ্কার হাত ধরেই টেস্ট ক্রিকেট ফিরল পাকিস্তানে। রাওয়ালপিন্ডি স্টেডিয়ামে তাই আয়োজনের কোনও অভাব ছিল না। প্রাক্তন পাক ও লঙ্কার অধিনায়ককে সংবর্ধনা পর্ব যেমন ছিল তেমনই, মাঠে নামার আগে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের হাতে পাকিস্তানের টেস্ট ক্যাপ উপহার হিসেবে তুলে দিলেন পাক ক্রিকেটাররা। 

 

 

আরও পড়ুন - দুরন্ত ছন্দে লিভারপুল, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে ক্লপের দল, জয় চেলসিরও

পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের কাছেও এই মূহুর্তটা ছিল এক অন্য আবেগের। হবে নাই বা কেন? ঘরের মাঠে তাদের প্রথম টেস্ট বলে কথা। কড়া নিরাপত্ত ব্যবস্থার মধ্যে শুরু হয়েছে পাকিস্তান শ্রীলঙ্কা প্রথম টেস্ট। নিরাপত্তা ব্যবস্থা এতটাই আঁটোসাঁটো যে সিকিউরিটি চেক করিয়ে মাঠে ঢুকতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে ক্রিকেট প্রেমীদের। মাঠে দর্শক সংখ্যাতেও তাই কিছুটা হলেও ভাঁটা পরেছে। মাস তিনেক আগে এই শ্রীলঙ্কা দলই পাকিস্তানের মাটিতে ফিরিয়ে দিয়েছিল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। ১০ বছর পর পাকিস্তানের মাটিতে হয়েছিল একদিনের ম্যাচ ও টি-২০ ক্রিকেট। এবার টেস্ট ক্রিকেটটাও ফিরে এল তাদের দেশে। 

 

 

আরও পড়ুন - আইসিসি’র বিরুদ্ধে লড়াই, ইংল্যান্ড বোর্ডের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন সৌরভরা

দশ বাছের বাদে টেস্ট ক্রিকেট তাদের দেশে ফিরে এসেছে এই আনন্দেই ভেসা থাকতে রাজি নয় পিসিবি। জানুয়ারিতে ঘরের মাঠে দিন-রাতের পিঙ্ক বল টেস্ট আয়োজন করতে চায় তারা। জানুয়ারি মাসে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের জোড়া টেস্ট খেলতে পাকিস্তানে যাবে বাংলাদেশ। পিসিবির পক্ষ থেকে এমন প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কাছে। করাচির টেস্টটি দিন রাতের করার ভাবনা পাকিস্তান বোর্ডের। ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যে প্রথম দিন রাতের টেস্ট হওয়ার পর দ্বিতীয় পিঙ্ক বল টেস্টটি খেলেছিল পাকিস্তান। দুবাইতে তখন হোম গ্রাউন্ড ছিল তাদের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সেবার জয় পেয়েছিল পাকিস্তান। তারপর আরও তিনটি পিঙ্ক বল টেস্ট খেলেছে তারা। এবার ঘরের মাঠে প্রথম পিঙ্ক বল টেস্ট আয়োজনের ভাবনা পাকিস্তানের। অপেক্ষা বাংলাদেশের সম্মতির। 

আরও পড়ুন - পাহাড়ে দুরন্ত ইস্টবেঙ্গল, নেরোকাকে চূর্ণ করে আই লিগে প্রথম জয়