নাগরিকত্ব সংসধোনী বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ তীব্রতর হয়েছে আসামে। তুমুল বিক্ষোভের জেরে গুয়াহাটি সহ একাধিক জেলায় কার্ফু জারি করা হয়েছে। সাধারণ জীবনে এর প্রভাব পরার পাশাপাশি খেলার মাঠেও পরেছে বিক্ষোভের আঁচ। বৃহস্পতিবার রঞ্জি ট্রফইর ম্যাচ বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই ও অসম ক্রিকেট সংস্থা। ৯ তারিখ থেকে গুয়াহাচিতে শুরু হয়েছিল অসম ও সার্ভিসেসের মধ্যে রঞ্জি ম্যাচ। প্রথম তিন দিনের খেলা হলেও চতুর্থ দিন একটা বলও খেলা হয়নি। আপাতত ম্যাচ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে। এমনকি ত্রিপুরার আগরতলায় চলা ত্রিপুরা ও ঝাড়খন্ড ম্যাচও স্থগিত রাখা হয়েছে। 

আরও পড়ুন - নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদে আন্দোলন, গুয়াহাটিতে বাতিল আইএসএল ম্যাচ

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের জিএম ক্রিকেট কন্ট্রোল জানিয়েছেন, ‘অসম ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে থেকে আমাদের জানানো হয়েছে, মাঠে না যেতে। দুই দেলর ক্রিকেটার ও ম্যাচ অফিসিয়ালরা হোটেলেই আছেন। কারণ সবার নিরাপত্তার দিকে আগে বিবেচনা করে দেখা হচ্ছে। যেহেতু এখানে কার্ফু জারি করা হয়েছে, তাই সবাই হোটেই আছেন, অসমের রাজ্য সংস্থা যেমন ভাবে নির্দেশ দেবে তেমন ভাবেই আগামী দিনের কথা ভাবা হবে।’ গুয়াহাটিতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে বেশ সুবিধে জনক জায়গায় ছিল সার্ভিসেসে। শেষ দিন আসামের ম্যাচ জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ১৬৮ রান। কিন্তু হাতে আছে মাত্র পাঁচ উইকেট। 

আরও দেখুন - দিনভর সংঘর্ষ, হামলা রেলস্টেশন থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে, অগ্নিগর্ভ অসম

বৃহস্পতিবার সকালে গুয়াহাটিতে আইএসএলের ম্যাচও বাতিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবারই মাঠে নামার কথা ছিল নর্থ-ইস্ট ইউনাইটেড এফসি ও চেন্নাইন এফসির। লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর থেকেই তুমুল বিক্ষোভ শুরু হয়েছে অসমে। বুধবার রাজ্য সভায় এই বিল পাস হওয়ার পর থেকে আন্দোলন আরও তীব্র হয়েছে। এমনকি মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়ালের বাড়িতেও হামাল চালিয়েছিল আন্দোলনকারীরা। একের পর এক বাসে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হওয়ায় কার্ফু জারির পাশাপাশি সেনাও নামানো হয়েছে একাধিক জেলায়। 

আরও পড়ুন - বাতিল বহু উড়ান, অসম-এ আটকে পড়া যাত্রীদের উদ্ধারে পাঠানো হচ্ছে বিশেষ বিমান