রাহুল দ্রাবি়ড়কে কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের নোটিশ দেওয়ার পর সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বলেছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটের নতুন ট্রেন্ড এটা। প্রচারে থাকার সেরা উপায়। দিন দিন পরিস্থিতি যে দিকে এগোচ্ছে তাতে সৌরভের কথটা কতটা ঠিক সেটা সেটাই প্রমাণ হচ্ছে। এবার কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের প্রশ্ন  উঠল ক্রিকেট অ্যাডভাইজারি কমিটির তিন সদস্যের বিরুদ্ধে। কমিল দেব, অংশুমান গায়েকওয়াড় ও শান্তা রঙ্গস্বামীর বিরুদ্ধে কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের প্রশ্ন তুললেন মধ্যপ্রদেশে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের লাইফ মেম্বার সঞ্জীব গুপ্তা। রাহুলের বিরুদ্ধে অভিযোগটিও তিনি দাখিল করেছিলেন। এই অভিযোগ জমা পরার পরই সিএসির তিন সদস্যকে নোটিস পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের এথিক্স অফিসার ডিকে জৈন। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উত্তর দিতে বলা হয়েছে তিনজনকেই। 

আরও পড়ুন - অলিম্পিকের টিকিট পেল মিক্সড রিলে দল, হতাশা জনক পারফরম্যান্স দ্যুতি চন্দের

ক্রিকেটকে সেবা করার আরও অনেক উপায় আছে। সেদিকেই এবার মন দেব। নোটিশ পাওয়ার পরই সিএসির পদ ছেড়ে এমনই প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন শান্তা রঙ্গস্বামী। কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের নোটিশ দেখে ক্ষুব্ধ তিনি। কপিল-অংশুমান ও শান্তাই ভারতীয় পুরুষ ও মহিলা দলের বর্তমান কোচেদের বাছাই করেছেন। তারপরও এই নোটিশ, ক্ষুব্ধ শান্তা সিএসি’র পদ ছাড়ার পাশাপাশি ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের পদ থেকেও নিজেক সরিয়ে নিয়েছেন। 

আরও পড়ুন - খেলো ইন্ডিয়া প্রকল্পে বাড়তি ৭.৮৭ কোটি টাকা বরাদ্দ ভারত সরকারের

সঞ্জীব গুপ্তা নিজের অভিযোগে জানিয়েছেন, কপিল দেব সিএসি’র সদস্য হওয়ার পাশাপাশি ধারাভাষ্যকার, নিজের ফ্লাড লাইট কোম্পানীর সদস্য এবং  ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য। অংশুমান গায়েকওয়াড় নিজের ক্রিকেট অ্যাকাডেমি চালান এবং বিসিসিআই অ্যাফিলেসন কমিটির সদস্য। একাধিক পদে কেন আছেন এই তারকারা, এই প্রশ্ন তুলে কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের কথা বলছেন মধ্য প্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য। তিনিই এখন ভারতীয় ক্রিকেটের শিরোনামে। 

আরও পড়ুন - নেতা বিরাট সৌরভের মতই, বলছেন জাহির খা