সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই জানিয়েছিলেন করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর। এবার সেই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেই করোনা মুক্ত হওয়ার খবর জানালেন পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক শাহিদ আফ্রিদি। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ১৯ দিনের মাথায় কোভিড ১৯ থেকে মুক্ত হওয়ার সংবাদ দিলেন বুমবুম। শুধু শাহিদ আফ্রিদি নিজে নয়, প্রাণ পিপাসু ভাইরাসের কবল থেকে নিজের স্ত্রী ও দুই কন্যা সন্তানের মুক্ত হওয়ার খবরও দানালেন পাক তারকা।

আরও পড়ুনঃসহ খেলোয়ারের বান্ধবীকে ধর্ষণ অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটারের,সাজা শোনাল আদালত

গত ১৩ জুন করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর ট্যুইটারের মাধ্যমে জানিয়েছিলেন আফ্রিদি। মুক্ত হওয়ার পর আফ্রিদি সোশ্য়াল মিডিয়ায় লেখেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, করোনা আক্রান্ত আমার স্ত্রী এবং দুই কন্যা আকসা এবং আনশার শরীরে পুনরায় যে কোভিড১৯ পরীক্ষা হয়েছে তাতে তারা সম্পূর্ণ সুস্থ।’প্রায় তিন সপ্তাহ পর স্ত্রী এবং কন্যাসন্তানদের সঙ্গে নিজেও সুস্থ হওয়ার ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন আফ্রিদি। অনুরাগীদের উদ্দেশ্যে আফ্রিদি আর বলেছেন, ‘ধন্যবাদ প্রত্যেককে যারা প্রত্যেকে দুঃসময়ে পাশে থেকেছেন, আমাদের জন্য প্রার্থনা করেছেন। সর্বশক্তিমান আপনাদের ভালো রাখুন। আবার পরিবারকে সময় দিতে পারব। আমি আমার ছেলেমেয়েদের খুব মিস করছিলাম।’

 

 

আরও পড়ুনঃ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ কুমারা সঙ্গাকারাকে, প্রতিবাদে বিক্ষোভ দ্বীপরাষ্ট্রে

আরও পড়ুনঃবিদেশের মাটিতে হতে পারে আইপিএল,ইঙ্গিত দিলেন এক বোর্ড কর্তা

এর আগে পাকিস্তানের প্রাক্তন প্লেয়ার তৌফিক উমর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। পরে তিনিও মুক্ত হন। আফ্রিদির করোনা আক্রান্ত হওয়ার  পর সম্প্রতি মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন বর্তমান পাকিস্তান দলের ১০ জন ক্রিকেটার। তারাও করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকে রক্ষা পেয়েছে। একের পর এক প্রাক্তন ও বর্তমান ক্রিকেটারদের করোনা আক্রান্তের খবরে চিন্তা বেড়েছিল পিসিবির। এবার ধীরে ধীরে সকলে করোনা মুক্ত হওয়ায় স্বস্তি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের অন্দরেও।