ভারতীয় ক্রিকেটে সঞ্জয় মাঞ্জেকার ক্রিকেটর হিসেবে যতটা না নাম অর্জন করেছেন, তার থেকেও বেশি দুর্নাম অর্জন করছেন আজকাল। ক্রিকেটার হিসেবে তেমন আহামরি তিনি ছিলেন না। তবে ক্রিকেটার ধারাভাষ্যকার হিসেবে নিজের একটা জায়গা করেছিলেন সঞ্জয়। কিন্তু একর পর এক বিকর্ত তৈরি করে সেই জায়গাটাও নষ্ট করে চলেছেন প্রাক্তন এই ভারতীয় ক্রিকেটার। ইডেনেও আবার বিতর্কে জড়িয়ে পরলেন সঞ্জয়। এবার মাঞ্জেকারের বিতর্ক বাঁধল হর্ষ ভোগলের সঙ্গে। পিঙ্ক বলের দৃশ্যমানতা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে হর্ষ ভোগলের ক্রিকেট বোধ নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিলেন সঞ্জয়। 

আরও পড়ুন - ইডেনে টেস্ট জয় ঐতিহাসিক মুহূর্ত, বাংলাদেশকে হারিয়ে বলছেন রোহিত

পিঙ্ক বল টেস্ট ম্যাচের তৃতীয় দিন সম্প্রচারকারী চ্যানেলের হয়ে ধারাভাষ্য দিচ্ছেলেন দুজন। সেখানেই হর্ষ ভোগলে বলেন আমাদের ক্রিকেটারদের থেকে জানতে হবে এই গোলাপি বদল দেখতে তাদের কোনও সমস্যা হচ্ছে কি না? এই কথা হর্ষ বলার সঙ্গে সঙ্গেই সঞ্জয় বলে ওঠেন, গোলাপি বল দেখতে যে কোনও সমস্যা হচ্ছে না সেটা প্রথম দিন উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা স্লিপ ফিল্ডারদের ফিল্ডিং দেখলেই বোঝা যাচ্ছে। তখনই হর্ষ ভোগলে বলেন ক্রিকেটারদের থেকে জানলে বিষয়টি আরও পরিস্কার হবে। তখনই বিতর্ক উস্কে সঞ্জয় বলেন, তোমাকে জানতে হবে হর্ষ, আমরা যারা ক্রিকেটা খেলেছি তাদের প্রয়োজন নেই। ধারাভাষ্যের মাঝে এই কথা উঠে আসতেই শুর হয়ে যায় বিকর্ত। নেটিজেনদের একটা বড় অংশ হর্ষের পাশে দাঁড়ায়। তাঁদের বক্তব্য হর্ষ ভোগলের ক্রিকেট জ্ঞানকে অপমান করেছেন সঞ্জয়।
 

আরও পড়ুন - কোন পথে হবে টেস্ট ক্রিকেটের উন্নতি, পরামর্শ দিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট

 

 

 


 

 

এই কিছুদিন আগের ঘটনা, বিশ্বকাপে সময় ভারতীয় অল রাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজাকে বিটস অ্যান্ড পিসেসে ক্রিকেটার বলে অপমান করেছিলেন সঞ্জয় মাঞ্জেকার। সেটা শুনে রেগে আগুন হয়ে যায় জাদেজা। টুইট করে পাল্টা সঞ্জয়ের ধারাভাষ্যকে ভোকাল ডাইরিয়া বলেছিলেন জাড্ডু। এমনকি বিশ্বকাপে সেমিফাইনালের দুরন্ত একটা ইনিংস খেলে জাদেজা ব্যাট তুলে দেখিয়েছিলন কমেন্ট্রি বক্সের দিকে। যদিও পরে সঞ্জয় জানান তিনি সেটা দেখেননি। তখন তিনি লাঞ্চ করছিলেন। পরে অবশ্য বলেছিলেন জাদেজা তাঁকে ভুল প্রমাণ করেছেন। পরে এই নিয়ে নিজের ক্ষোভের কথা জানিয়েছিলন ভারতীয় দলের কোচ রবি শাস্ত্রীও।

আরও পড়ুন - পিঙ্ক বল টেস্টের সফল আয়োজন, রবি শাস্ত্রীও ধন্যবাদ জানালেন সৌরভকে