২০০ সালের ম্যাচ গড়াপেটার কথা আমাদের  সকলেরই জানা। যাতে নাম জড়িয়ে ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার প্রয়াত প্রাক্তন অধিনায়ক হ্যানসি ক্রোনিয়ের। সঙ্গে নাম জড়িয়েছিল বেশ কয়েক ভারতীয় ক্রিকেটারের। সেই তালিকায় ছিলেন মহম্মদ আজহারউদ্দিন ,অজয় জাদেজা সহ অনেকের নাম। আর সেই গড়াপেটার কাণ্ডের অন্যতম নায়ক ছিলেন কুখ্যাত বুকি সঞ্জীব চাওলা। অবশেষে দীর্ঘ ২০ বছর পর জামিন পেলেন সেই কুখ্যাত বুকি। তাও অবশ্য জানলে অবাক হবেন করোনা ভাইরাসের বদান্যতায়। 

আরও পড়ুনঃ১৬ মে থেকে শুরুর কথা বুন্দাসলিগা,তার আগে সব প্লেয়ারদের হবে করোনা টেস্ট

২০০০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা তথা বিশ্বক্রিকেটকে রীতিমতো আলোড়িত করেছিল তৎকালীন প্রোটিয়া অধিনায়ক হ্যানসি ক্রোনিয়ের একটি স্বীকারোক্তি। ক্রোনিয়ে স্বীকার করেছিলেন, তিনি বুকিদের পাল্লায় পড়ে ম্যাচ ফিক্স করেছেন। ক্রোনিয়ের সঙ্গে বুকিদের যোগাযোগ করিয়ে দেয় এই সঞ্জীব চাওলা। এছাড়াও চাওলার বিরুদ্ধে একাধিক গড়াপেটার অভিযোগ আছে। ২০০০ সালের ৭ এপ্রিল হ্যানসি ক্রোনিয়ের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগ দায়ের করে দিল্লি পুলিস। মাসখানেক পরেই জিজ্ঞাসাবাদে ফিক্সিংয়ের কথা স্বীকার করেন ক্রোনিয়ে। তিনি জানিয়ে দেন, সঞ্জীব চাওলা নামের ওই বুকিই তাঁকে ফিক্সারদের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দিয়েছে। ক্রোনিয়ের স্বীকারোক্তির পর ম্যাচ গড়াপেটার তদন্ত গতি পায়। কিন্তু, বছর দুই পরে এক ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনায় মারা যান ঘটনার মূল অভিযুক্ত এবং সাক্ষী ক্রোনিয়ে। ঝিমিয়ে পড়ে ম্যাচ গড়াপেটা তদন্তের গতি। এদিকে, ততদিনে সঞ্জীব চাওলা ভারত ছেড়ে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছে ব্রিটেনে। সেখানেই নাগরিকত্ব নিয়ে এতদিন থাকছিল কুখ্যাত এই বুকি। তাঁর বিরুদ্ধে ২০১৩ সালে চার্জশিট পেশ করে দিল্লি পুলিস। তারপর থেকেই লন্ডনের আদালতে তাঁর প্রত্যর্পণের মামলা চলছিল। ফেব্রুয়ারিতে সেই মামলায় জয়লাভ করে ভারত। তাঁকে দেশে ফেরান হয়।

আরও পড়ুনঃশুধু শীর্ষস্থান দখল নয়,ভারতের মাটিতে কোহলির দলকে হারানোই প্রধান লক্ষ্য অস্ট্রেলিয়ার

আরও পড়ুনঃঅধিনায়ক ও ব্যাটসম্যান হিসেবে স্মিথের থেকে এগিয়ে কোহলি,মন্তব্য প্রাক্তন অজি অধিনায়কের

২০ বছর ধরে তার বিরুদ্ধে ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগে মামলা চলছে ভারতের আদালতে। সঞ্জীব চাওলা দেশে ফিরে বারবার আবেদন করেও মিলছিল না জামিন। জেলেই ছিল একাধিক গড়াপেটা কাণ্ডের অন্যতম মাস্টার মাইন্ড। অবশেষে সহায় হল করোনা। করোনা আতঙ্ককে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে দিল্লির এক আদালতে শর্ত সাপেক্ষে জামিন পেল ২০ বছর আগের ম্যাচ গড়াপেটা কেলেঙ্কারির ‘নায়ক’। কিন্তু  আদালতের অনুমতি ব্যতীত দেশত্যাগ করতে পারবে না কুখ্যাত জুয়াড়ি। পশাপাশি তারউপর রাখা হবে নজরদারিও।