সুনীল গাভাস্করের সঙ্গে একই ঘরানায় এলেন অস্ট্রেলিয়ার ব্য়াটসম্য়ান স্টিভ স্মিথ। অ্য়াশেজে দুরন্ত পারফরম্য়ান্সের পর টেস্ট ক্রিকেটের রেকর্ডে গাভাস্করের সঙ্গে একই ছাতার তলায় এবার স্মিথ। কিছুদিন আগেই অ্য়াশেজে ডবল সেঞ্চুরি করে ও একের পর এক বিধ্বংসি ইনিংসের দরুন টেস্টে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে ছাপিয়ে গিয়েছিলেন স্মিথ। আইসিসি টেস্ট ব়্য়াঙ্কিংয়ে এবার প্রাক্তন ভারত অধিনয়াক গাভাস্করের সঙ্গে একটি সিরিজের ৪ ম্য়াচে সর্বোচ্চ রান করার রেকর্ডে দ্বিতীয় স্থানে এলেন স্টিভ। অ্য়াশেজের ৪ ম্য়াচে ৭৭৪ রান করেছেন স্মিথ। তিনটি শতরান, একটি দ্বিশতরান ও তিনটি অর্ধশতরানের সুবাদে এই সিরিজে এই রেকর্ডের অধিকারি দ্বিতীয় স্থানে থাকা গাভাস্করকে ছুয়ে ফেলেছেন তিনি।

আরও পড়ুন, চাই ৩০৪ রান, ব্র্যাডম্যানের রেকর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে স্টিভ স্মিথ

অতীতে ১৯৭১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে ৪ ম্য়াচে ৭৭৪ রান করেছিলেন সুনীল গাভাস্কর। এবার ৪৮ বছর পর গাভাস্করের এই রেকর্ড স্পর্শ করলেন স্মিথ। অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক অ্য়াশেজের লড়াইেয় রানের পাহাড় করলেও, অতীতে গাভাস্কর এই রেকর্ডর দ্বিতীয় স্থান নিশ্চিত কেরছিলেন নিজের অভিষেক টেস্ট ম্য়াচেই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৫ ম্য়াচের সিরিজে প্রথম ম্য়াচে একাদশে ছিলেন না গাভাস্কর। পোর্ট অব স্পেনে টেস্ট অভিষেকে বিধ্বংসি ক্য়ারিবিয়ান বোলিংয়ের বিরুদ্ধে দুই ইনিংসেই অর্ধশতরান করেছিলেন গাভাস্কর। আর সেই ম্য়াচের পর ৪ ম্য়াচে মোট ৭৭৪ রান করেন ভারতের লিল মাস্টার।

আরও পড়ুন, ম্যাঞ্চেস্টারে ১৮৫ রানে জয়, অ্যাসেজ ধরে রাখল অস্ট্রেলিয়া

স্মিথ এই রেকর্ডের দ্বিতীয় স্থানে থাকা গাভাস্করকে স্পর্শ করলেও এই রেকর্ডের প্রথম স্থান অধিকারি হলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভিভিয়ান রিচার্ডস। ১৯৭৬ সালে ইংল্য়ান্ডের বিরুদ্ধে ব্রিটিশদের ঘরের মাঠে ৪ ম্য়াচের টেস্ট সিরিজে ৮২৯ রান করেছিলেন রিচার্ডস। স্মিথের মতন ৫ ম্য়াচের সিরিজে একটি ম্য়াচ বিশ্রামে ছিলেন এই ক্য়ারিবীয় নায়ক। তবে আগামী দিনে একটি সিরিজে সর্বোচ্চ রান করার এই রেকর্ড আর কিছুদিনে ভেঙে দিতেই পারেন অস্ট্রিলয়ার ব্য়াটসম্য়ান স্টিভ স্মিথ। আর সেটা হেলও খুব একটা অবাক হবে না বিশ্ব ক্রিকেট মহল। ইংল্য়ান্ডে সদ্য় শেষ হওয়া টেস্ট সিরিজে চোটের কারণে একটি ম্য়াচে মাঠে নামতে পারেননি স্মিথ। স্মিথের এই বিধ্বংসি ব্য়াটিংয়ের সুবাদে ৫ ম্য়াচের এই সিরিজ ২-২ ফলে ড্র করল অস্ট্রেলিয়া দল।