অধিনায়ক হিসেবে এক নতু ভারতীয় দলের জন্ম দিয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। যে দল বিদেশের মাটিতেও প্রতিপক্ষের চোখে চোখ রেখে লড়াই করার সাহস রাখে। যে দল জানে কীভাবে বিদেশের মাটিতে টেস্ট জিততে হয়। যে দল হার না মানা মনোভাব নিয়ে শেষ পর্যব্ত লড়ে যায়। এককথায় টিম ইন্ডিয়ার জন্ম সৌরভের হাত ধরে। সৌরভের অধিনায়কত্বে একাধিক সাফল্য পেয়েছে ভারতীয় দল । তারমধ্যে ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জয় ও ২০০৩ বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌছানো অন্যতম। সেই ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জয় ও বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌছনোকেই তার কেরিয়ারর অন্যতম সেরা জয় হিসেবে মানলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা বর্তমান বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

আরও পড়ুনঃ'সাপে কামড়ালে চিকিৎসা হয়, ভুল ধরণার নয়',আফ্রিদিকে আক্রমণ আকাশ চোপড়ার

বিসিসিআই টিভিতে ভারতীয় ক্রিকেটার মায়াঙ্ক আগরওয়ালের সঙ্গে লাইভ চ্যাট সো-তে যোগ দিয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সেখানে কেরিয়ারের সেরা সাফল্যের বিষয়ে জানতে চাইলে সৌরভ বলেন,'২০০২ ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জয়ের মর্যাদাই অন্য রকম। শনিবারের দুপুরে লর্ডসের ভর্তি গ্যালারির সামনে জেতার অনুভূতি আর পাঁচটি জয়ের সঙ্গে তুলনা করা যায় না। এই ম্যাচে ইংল্যান্ডের মুখ থেকে জয় ছিনিয়ে এনেছিলাম আমরা। অবিশ্বাস্য ইনিংস কেলেছিল সেই সময় তরুণ যুবরাজ সিং ও মহম্মদ কাইফ। তাই ন্য়াটওয়েস্ট ট্রফি জয়ের অনুভূতুটাই আলাদা।' তবে সৌরভ এও জানান,'বিশ্বকাপ ফাইনালে ওঠার অনুভূতিও আলাদা। ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরেছিলাম ঠিকই, কিন্তু বাকিদের হারিয়ে সেই জায়গায় পৌঁছই।  ফলে ন্যাটওয়েস্ট জয় ও বিশ্বকাপের ফাইনাল এই দুটোর তুলনায় চলে না।'

আরওবর্তমান দল থেকে কাকে ২০০৩ বিশ্বকাপ দলে নিতেন,মায়াঙ্কের প্রশ্নের উত্তরে সৌরভ বললেন

আরও পড়ুনঃওপেনিংয়ের সময় কেনও প্রথম বল খেলতেন না সচিন,রহস্য ফাঁস করলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

তবে এই দুটি ছাড়াও একাধিক সাফল্য দেশকে এনে দিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। যেগুলি ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবে।  ২০০০ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির রানার-আপ। ২০০১ সালে ইডেনে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট জয়। ঘরের মাঠে ওই সিরিজ পিছিয়ে পড়েও ২-১ জিতেছিল ভারত।  ২০০২ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যুগ্মবিজয়ী।  ২০০৩ সালে পাকিস্তানের মাটিতে টেস্ট ও ওয়ান ডে সিরিজ জয়। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট সিরিজ ড্র তাদের মধ্যে অন্যতম।