তাদের কলকাতায় আসা নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি। কিন্তু অবশেষে সব মিটল শান্তিতেই। কলকাতায় পৌছল দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল। আর প্রোটিয়াদের কলকাতায় আসার খবর পেয়েই স্বাগত জানাতে পৌছে যান সিএবি সভাপতি অভিষেক ডালমিয়া ও সিএবির যুগ্ম সচিব দেবব্রত দাস। ০ক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের সদস্যদের সঙ্গে আলাপচারিতাও সারেন সিএবি সভাপতি। সোমরা কলকাতায় কাটিয়ে মঙ্গলবার সকালে দেশে ফেরার বিমান ধরবেন ক্যুইন্টন ডি কক, ডুপ্লেসি, এনগিডিরা।

আরও পড়ুনঃকরোনার থাবা জাপানেও,মঙ্গলবার অলিম্পিকের ভবিষ্যৎ নিয়ে বৈঠক আইওসির

প্রসঙ্গত, করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে ত্রস্ত  গোটা পৃথিবী। খেল  বিশ্বে থাবা ক্রমশ চওড়া করছে করোনা ভাইরাস। বাদ যায়নি ভারতও। করোনা ভাইরাস আতঙ্কের জেরে স্থগিত হয়ে গিয়েছে আইপিএল।  বাতিল হয়ে গিয়েছে ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা একদিনের সিরিজও। ফলে দেশে ফেরার অপেক্ষায় ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল। লখনউ থেকে দেশে ফিরবেন প্রোটিয়ারা। কিন্তু দিল্লিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেশি হওয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যানেজমেন্ট জানায়, তারা দিল্লি হয়ে ফিরতে চায় না। বরং কলকাতায় এখনও পর্যন্ত করোনা প্রকোপ না থাকায়, কলকাতাকে অনেক বেশি সুরক্ষিত মনে করে দক্ষিণ আফ্রিকা টিম ম্যানেজমেন্ট। তাই কলকাতায় হয়ে দেশে ফেরার ইচ্ছে প্রকাশ করে প্রোটিয়ারা। কলকাতায় তাজবেঙ্গল হোটেলে সোমবার থেকে মঙ্গলবার দেশে ফেরার বিমান ধরার কথাও জানায় মার্ক বাউচারের দল।  আর এখান থেকেই শুরু হয় বিপত্তি। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল কলকাতা হয়ে দেশে ফিরলে কোনও আপত্তি নেই রাজ্য সরকারের। কিন্তু প্রোটিয়াদের তাজ বেঙ্গলে থাকায় আপত্তি জানায় নবান্ন। নবান্নের তরফে জানানো হয়, প্রোটিয়ারা কলকাতা হয়ে ফিরলে কোনও সমস্যা নেই। তবে তাদের কলকাতা বিমানবন্দরে নেমে রাজারহাটের আশেপাশে যে কোনও হোটেলে থাকতে হবে। কিন্তু তাজবেঙ্গল হোটেল একদম শহরের মধ্যে। তাই করোনা সংক্রমণের ক্ষেত্রে কোনওরকম ঝুঁকি নিতে চায়নি রাজ্য সরকার। কারণ  কলকাতায় এখনও হানা দেয়নি করোনা। তাই বলে সতর্কতায় কোনও ফাঁক রাখতে রাজি নয় নবান্ন।

আরও পড়ুনঃকরোনা নিয়ে ভিডিও বার্তা রোহিতের, সকলকে সচেতন ও সুস্থ থাকার পরামর্শ

আরও পড়ুনঃবাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত ৮, সোশাল সাইটে সচেতনতা বার্তা সাকিব আল হাসানের

দক্ষিণ আফ্রিকা দল প্রথমে রাজারহাটের হোটেলে থাকতে রাজি হয়নি। কিন্তু নবান্ন নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় থাকায় দীর্ঘ টালবাহানার পর অবশেষে নবান্নের সিদ্ধান্তকেই মেনে নেয় ক্যুইন্টন ডি ককের দল। সেই মতই সোমবার দুপুরে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের বিমান পৌছয় কলকাতা বিমান বন্দরে। সেখানে তাদের অভ্যর্থনা জানান সিএবি সভাপতি অভিষেক ডালমিয়া ও যুগ্মসচিব দেবব্রত দাস। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে প্রোটিয়া দলকে নিয়ে যাওয়া হয় বিমান বন্দর সংলগ্ন রাজারহাটের ওয়েস্ট ইন হোটেলে। পাশাপাশি তাঁদের আপ্যায়নের সমস্ত রকম ব্যবস্থা করা হয় সিএবির পক্ষ থেকে। সোমবার রাতে তারা ওয়েস্ট ইনে থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮.৫৫-র বিমানে দেশে ফিরে যাবে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল।