বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান চিলেন তিনি। মাঠের চারিদিকে সমানভাবে শট খেলার দক্ষতা থাকায় তাকে মিস্টার ৩৬০ ডিগ্রী বলা হয়। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার সফলতম ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যতম এ বি ডিভিলিয়ার্স। দেশের হয়ে ১১৪ টা টেস্ট, ২২৮ টা ওয়ানডে আর ৭৮ টা আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। ২০১৮ সালের মে মাসে হঠাৎই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান তিনি। হঠাতই অবসর ঘোষণা করায় শুধু প্রোটিয়াদের নয়, মন খারাপ হয়েছিল বিশ্ব জুড়ে ক্রিকেট প্রেমীদের। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও, আইপিএল সহ বিভিন্ন দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লিগগুলোয় খেলা চালিয়ে যাচ্ছিলেন এবিডি। তবে বেশ কয়েক মাস ধরেই জল্পনা চলছিল অবসর ভেঙে ফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরতে পারেন ডিভিলিয়ার্স। তবে এত দিন এবিষয়ে কোনও মুখ খোলেননি তিনি। এবার পের দেশের জার্সিতে ২২ গজে ফেরার ইঙ্গিত দিলেন খোদ এবি ডিভিলিয়ার্স।

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ঈশ্বরের হাত চাইছেন মারাদোনা

ত বছরের শেষদিক থেকে তাঁর অবসর ভেঙে পুনরায় জাতীয় দলের জার্সিতে খেলার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে জল্পনা ছিল যে কোনও সময় জাতীয় দলে ফিরতে পারেন এবি।  সব ঠিকঠাক থাকলে অবসর ভেঙে ফের জাতীয় দলে ফিরবেন তিনি। শুধু তাই নয়, দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট বোর্ড তাঁকে ফের প্রোটিয়াদের অধিনায়ক হওয়ারও প্রস্তাব দিয়েছে। দু’বছর পর জাতীয় দলে  ফিরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই অধিনায়ক হয়ে যেতে পারেন সকলের প্রিয় এবিডি। একটি ক্রিকেট শো’তে এসে ডিভিলিয়ার্স বলছিলেন, “আমার ইচ্ছা আছে আবারও দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলার। ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকাও ফের দলকে নেতৃত্ব দিতে অনুরোধ করেছে।” এবি বলছেন নিজের ফর্ম ভাল থাকলেই জাতীয় দলের জার্সিতে ফিরবেন। যদি মনে হয় তিনি নিজের ক্ষমতায় দক্ষিণ আফ্রিকার দলে থাকার মতো পারফর্ম করতে পারছেন তাহলেই ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার প্রস্তাব ভেবে দেখবেন। তাঁর কথায়, “আমি অনেকদিন দক্ষিণ আফ্রিকা দলের অংশ নই। আমার কাছে এটা বুঝে নেওয়া জরুরি যে আমি এখনও দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলার উপযুক্ত।” তিনি বলছেন, “আমাকে আবার সেরা ফর্মে ফিরতে হবে। এবং অন্য ক্রিকেটারদের থেকে ভাল খেলতে হবে।”

আরও পড়ুনঃ১৯ বছর পর গড়াপেটায় যুক্ত থাকার অভিযোগ স্বীকার প্রাক্তন পাক অধিনায়কের

আরও পড়ুনঃ'তুমি করোনা ভাইরাসের থেকেও খারাপ,তুমি একটা সাপ',রামনরেশ সারওয়ানকে আক্রমণ গেইলের

স্বয়ং ডিভিলিয়ার্সের মুখ থেকে এই কথা শোনার পর আশায় বুক বাঁধছে ক্রিকেট প্রেমীরা। আইপিএলকেই হয়তো দেশের জার্সিতে ফেরার প্রস্তুতি মঞ্চ হিসেবে ধরেছিলেন ডিভিলিয়ার্স। সম্প্রতি বিরাট কোহলিকে তিনি জানিয়েছিলেন, আইপিএলের জন্য খুব খেটছি। আইপিএল না হলে খুব হতাশ হব। তারপরই এবিডি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ইঙ্গিত দেওয়ায় ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন ২২ গজে ব্য়াট হাতে ডিভিলিয়ার্সের ঝড় তোলাটা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।