অবশেষে দীর্ঘদিনের নির্বাসন থেকে মুক্তি পেতে চলেছে ভারতীয় পেসার শান্তাকুমারন শ্রীসন্থ। আগামী বছর সেপ্টেম্বর মাস থেকেই বাইষ গজে দেখা যাবে তাঁকে। শ্রীসন্থের শাস্তি কমিয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন বিসিসিআইয়ের ওম্বুডসম্যান বিচারপতি ডি কে জৈন। 

২০১৩ সালে সেপ্টেম্বর মাসে আইপিএলে ম্যাচ গরাপেটায় নাম জড়িয়েছিল শ্রীসন্থের। তার জেরে তাঁকে আজীবন ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত করেছিল বিসিসিআই। ওই বছর শ্রীসন্থের সঙ্গে নাম জড়িয়েছিল রাজস্থানের আরও দুই ক্রিকেটার, অঙ্কিত চহ্বান ও অজিত চাণ্ডিলা। তাদেরকেও ক্রিকেট থেকে আজীবন নির্বাসন দিয়েছিলেন বিসিসিআই।

আরও পড়ুন আরও এক 'বিরাট' রেকর্ড, টেস্টেও নজিরের সামনে কিং কোহলি 

চলতি বছরে সুপ্রিম কোর্টের কাছ থেকে শ্রীসন্থের নির্বাসনের ব্যাপারটা পুনরায় খতিয়ে দেখার নির্দেশ পান বোর্ডের অম্বুডসম্যান ডি কে জৈন। তবে শেষমেশ কেরলের এই খেলোয়াড়ের শাস্তি কমানোর সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সেই সঙ্গে জানিয়েছেন যে নিজের ব্যাপারে তদন্তে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করেছেন শ্রীসন্থ। আদালতে আগেই নিজেকে নির্দোষ প্রমান করলেও তাঁকে খেলতে দেয়নি বিসিসিআই। তবে এবার ভাগ্য সঙ্গ দিয়েছে তাঁর। আজীবন নির্বাসনের শাস্তি কমিয়ে সাত বছর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিসিসিআই অম্বুডসম্যান। 

২০১৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে নির্বাসিত হয়েছিলেন শ্রীসন্থ। হিসাব মত ৬ বছর নির্বাসন আগেই কাটিয়ে ফেলেছেন তিনি। তাই আগামী বছর সেপ্টেম্বর মাসের পর থেকেই আবার ক্রিকেটের মাঠে দেখা যাবে শ্রীসন্থকে। সব রকম ফরম্যাটেই ক্রিকেট খেলতে পারবেন তিনি। তবে শ্রীসন্থের বয়স এখন ৩৬ হওয়ায় জাতীয় দলে খেলার সম্ভাবনা তাঁর প্রায় নেই বললেই চলে। সে ক্ষেত্রে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে পারবেন তিনি।