এক দুই বা তিন নয়, এশিয়ার মাটিতে টানা নটি টসে হেরেছেন তিনি। একদিকে টসে হার, অন্যদিকে ম্যাচেও হার। চরম হতাশ দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডুপ্লেসি। তাই রাঁচী ম্যাচের আগে সাংবাদিক সম্মেলনে এসে আর মজার ছলেই হতাশার কথাটা বলে ফেললেন ফাফ। বলছেন তাঁর জায়গায় অন্য কেউ যদি টস করতে যায় তাহলে তিনি অন্তত কোনও আপত্তি করবেন না। এতটাই হতাশ শোনাল দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ককে। আর হবেন নাই বা কেন? বিরাটের দল তাঁদের যা পরিণতি করেছে তাতে যেন ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি অবস্থা প্রটিয়াদের। 

আরও পড়ুন - আসন ৩৯ হাজার, টিকিট বিক্রি হল দেড় হাজার, আর টেস্ট চায় না রাঁচী

পুণেতে সিরিজ জয়ের পর ভারত অধিনায়ক বিরাট বলেছিলেন এবার লক্ষ্য হোটাইট ওয়াশ। সেই লক্ষ্য থেকে একেবারেই যে তাঁর সরে আসেননি সেটা অনুশীলনে টের পাওয়া যাচ্ছিল। সবাই সিরিয়াস। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে অনেকটা এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ কোনও ভাবেই হাতছাড়া করতে চান না বিরাটরা। ২০১৭ সালে রাঁচীতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দাপুটে ক্রিকেট খেলেও ম্যাচ জেতা হয়নি। এবার রাঁচীতেও খাতা খুলতে চায় টিম ইন্ডিয়া। অনুশীলনে ফাঁকে গিয়ে উইকেটের চরিত্র বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করতে দেখা গেল কোচ রবি শাস্ত্রীকে। এদিকে চোটের জন্য ভারতীয় দলে থেকে ছিটকে গেলেন কুলদীপ যাদব, তাঁর জায়গায় দলের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন শাহাবাজ নদিম। 

আরও পড়ুন - টি২০ বিশ্বকাপই পাখির কোহলির, টেস্ট ব়্যাঙ্কিংয়ে ফের শীর্ষ স্থানের হাতছানি বিরাটের

দ্বিতীয় ম্যাচে তিন পেসার নিয়ে মাঠে নেমেছিল ভারতীয় দল। রাঁচীতে প্রথম দলের পরিবর্তনের সম্ভাবনা খুবই কম। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকাকে দলে একাধিক পরিবর্তন করতেই হবে। কেশব মহারাজ চোটের জন্য নেই। ওপেনার মাক্রম ঘুষি মেরে হাতে চোটে পেয়েছেন, তিনিও নেই শেষ টেস্টে। এই দুটি পরিবর্তন করতেই হবে ফাফকে। প্রথম দুটি টেস্টে ৪০টি উইকেট হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। অন্যদিকে ভারতের মাত্র ১৬টি উইকেট পরেছে। এই পরিসংখ্যানই বলে দেয় দুই দলের বোলিংয়ের পার্থক্য। দক্ষিণ আফ্রিকা শিবির একটাই প্রার্থনা করছে, টেস জিতে যেন প্রথমে ব্যাটিং করার সুযোগ পান তাঁরা। তাহলেই নাকি অনেক কিছুই হতে পারে। বলছেন প্রোটিয়া অধিনায়ক। কিন্তু বাস্তবে কি সেটা সম্ভাব। কোহলিরা এই কথা শুনে যে মুখ টিপে হাসছেন। 

আরও পড়ুন - রেষারেষি নেই, আছে অসাধারণ বোঝাপড়া, পন্থের সঙ্গে সম্পর্কে নিয়ে বললেন ঋদ্ধি