নভেম্বরের ২২ তারিখ ভারতীয় ক্রিকেটে একটা নতুন যুগের সূচনা হচ্ছে। দেশের মাটিতে প্রথমবার দিন রাতের পিঙ্ক বল টেস্টের আয়োজন করতে চলেছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। কলকাতায় ঐতিহাসিক ম্যাচ নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে উন্মাদনা। টিকিট বিক্রির প্রক্রিয়া যেমন শুরু হয়েছে তেমনই, প্রথম দিন রাতের টেস্ট ম্যাচের জন্য হাই প্রোফাইল অতীথিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। উপস্থিত থাকতে চলেছেন খোদ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। থাকতে পারেন ভারেতর প্রধানমন্ত্রীও। এছাড়াও থাকছেন সচিন, লিয়েন্ডার, বিন্দ্রা, মেরি কমের মত ভারতীয় ক্রীড়াক্ষেত্রের দিকপালরা। সেজে উঠছে ক্রিকেটের নন্দন কানন। 

আরও পড়ুন - দিল্লিতে জরুরি অবস্থা, রোহিতের আশ্বাসে চিন্তা মুক্ত মহারাজ

কিন্তু এর মাঝেই বেসুরো বাজলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলেরো কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। বাংলাদেশের ভারত সফরের প্রথম ম্যাচ খেলার জন্য এখন দিল্লিতে বাংলাদেশ দল। কিন্তু টি-২০ সিরিজের উন্মাদনা সরিয়ে বারবার জায়গা করে নিচ্ছে প্রথম দিন রাতের টেস্টের প্রসঙ্গ। দিল্লিতে ইডেন টেস্ট নিয়ে বাংলাদেশ কোচ প্রশ্ন করা হলে রাসেল ডমিঙ্গো বলেন, ‘প্রথমবার দিন রাতের টেস্ট ম্যাচ খেলতে নামার আগে দু’দিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচ পেলে সেটা সব থেকে ভাল হত। আমি যখন দক্ষিণ আফ্রিকা দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলাম, তখন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দিন রাতের টেস্ট খেলতে নামার আগে একটি দু’দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছিলাম। কারণ গোলাপী বলে খেলার অনেক কিছু চ্যালেঞ্জ আছে।’

আরও পড়ুন - ক্রিকেটার ধোনিকে ফুটবলার বানিয়ে দিলেন তাঁর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস

বাংলাদেশ কোচের কথায় যুক্তি আছে। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দলই প্রথমবার গোলাপী বলে টেস্ট ম্যাচ খেলতে নামবে। ভারতীয় টেস্ট দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে অনেকেই ঘরোয়া ক্রিকেটে গোলাপী বলে খেলেছেন, কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের সেই অভিজ্ঞতাও নেই। ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট সিরিজে দুটি ম্যাচ হবে। প্রথম টেস্ট ইন্দোরে ১৪ থেকে ১৮ নভেম্বর। দ্বিতীয় টেস্ট ইডেনে শুরু হবে ২২ নভেম্বর থেকে। দুই টেস্টের মাঝে সময় মাত্র তিন দিন। যার মধ্যে একদিন কাটবে ইন্দোর থেকে কলকাতায় আসতে। অনুশীলনের জন্য তাই দু’দিনে বেশি সময় পাবে না কোনও দলই। এক যদি প্রথম টেস্ট পাঁচ দিনের আগেই শেষ হয়ে যায়। তাই কিছুটা হলেও চিন্তায় বাংলাদেশ কোচ। যদিও মেনে নিচ্ছেন একই সমস্যায় পরবে ভারতীয় দলেও। প্রথম দিন রাতের টেস্টের জন্য বাংলাদেশ বোর্ডের সম্মতি আদায় করেছেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু এই ম্যাচ খেলা বা তার প্রস্তুতি নিয়ে যে কিছুটা হলেও বাংলাদেশ দলের মধ্যে দ্বিধা আছে, সেটা স্পষ্ট হয়ে গেল টাইগারদের কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর কথায়। 

আরও পড়ুন - পিঙ্ক বলে সব থেকে সফল ভারতীয় ব্যাটসম্যান, ‘গোলাপী’ রহস্য ফাঁস করলেন পূজারা