পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ রাজমা, একথা আমাদের সকলের জানা। রাজমা-র রেসিপির মধ্যে সবথেকে বেশি জনপ্রিয় রাজমা চাউল। আর রাজমার নতুন এক রেসিপি জানার আগে জেনে নিন, কেন খাবেন রাজমা। রাজমায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাঙ্গানিজ এবং ভিটামিন কে, যা শরীরে ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি কমাতে বিশেষ উপকারী।   এছাড়া রয়েছে আয়রন, যা রক্তে লোহিতকণিকার পরিমাণ ঠিকঠাক রাখে এবং পাশাপাশি শরীরকে প্রচুর এনার্জি সরবরাহ করে। পাশাপাশি রাজমায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি১ বা থায়ামিন। এই ভিটামিনটি স্মৃতিশক্তি ভাল রাখতে সাহায্য করে। তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ রাজমা-র সুস্বাদু এক রেসিপি রাজমা কবাব।

রাজমা কবাব বানাতে লাগবে-

আরও পড়ুন- চায়ের আড্ডা এবার জমবে বেসনের মশলাদার পাপড়ি সঙ্গে, রইল রেসিপি

৩০০ গ্রাম রাজমা
১ টেবল চামচ পেঁয়াজের পেস্ট
১ টেবল চামচ আদা ও রসুনের পেস্ট
১ টা টমেটো কুঁচি
১ টা বড় আলু টুকরো করা
হাফ চা চামচ লাল লঙ্কার গুঁড়ো
১ চা চামচ গোল মরিচের গুঁড়ো
১ চা চামচ গরম মশলা গুঁড়ো
১ কাপ নারকেল কোড়ানো
স্বাদ অনুযায়ি লবন
প্রয়োজন মত ভেজিটেবল অয়েল

আরও পড়ুন- শীতের বিদায় বেলায় চেখে দেখুন নলেন গুড়ের ছানার পায়েস, রইল সহজ রেসিপি

যে ভাবে বানাবেন-

রান্নার আগের দিন রাতে রাজমা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ভালো করে ধুয়ে সেদ্ধ করে নিন। ননস্টিক প্যানে তেল গরম করে আলু ভেজে তুলে রাখুন। তাঁতে পেঁয়াজ, আদা ও রসুন বাটা দিয়ে হালকা করে ভেজে নিন।  এবারে এতে টমেটো কুঁচি দিয়ে কষিয়ে নিন। এর পর একে একে এতে লাল লঙ্কার গুঁড়ো, গোল মরিচের গুঁড়ো, গরম মশলা গুঁড়ো ও লবন দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। মশলা ভালো করে কষানো হয়ে গেলে এতে নারকেল কোড়া দিয়ে দিন। এরপর এতে সেদ্ধ করে রাখা রাজমা এবং ভেজে রাখা আলু দিয়ে রান্না করুন। ভালো করে মাখা মাখা হয়ে এলে ঠান্ডা করে মিক্সারে পেস্ট করে নিন। এর পর ছোট ছোট কবারের আকারে তৈরি করে নিন। প্যানে তেল গরম করে ভালো করে দুপিঠ ভেজে নামিয়ে নিন। পুদিনার চাটনি বা সস-এর সঙ্গে পরিবেশন করুন রাজমা কাবাব।