বৃহস্পতিবার দিল্লির ফুটবল হাউসে আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করা হল ২০১৯-২০ মরসুমের আইলেগর। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সব দলের অধিনায়করা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলে ভারতীয় জাতীয় দলের কোচ ইগর স্টিমাচ। ছিলেন ফেডারেশন সভাপতি প্রফুল প্যাটেল, ফেডারেশন সচিব কুশল দাস, আইলিগ সিইও সুনন্দ ধর। সব দলের ২ জন ফুটবলার হোম ও অ্যাওয়ে জার্সি পরে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। তবে ইস্টবেঙ্গলের পক্ষ থেকে শুধুমাত্র ছিলেন অধিনায়ক লালরিনডিকা রালতে। মোহনবাগানের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন জোসেবা বেইতিয়া ও গুরজিন্দর কুমার। 

 

 

আরও পড়ুন - সাত রানে অল আউট গোটা দল, লজ্জার রেকর্ড হ্যারিস শিল্ডে

এবারের লিগে দেশের আটটি রাজ্য ও একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ১১টি দল অংশ নিচ্ছে। নতুন দল হিসেবে আইলিগে উঠে এসেছে টারু এফসি। ফেডারেশন সভাপতি টারু এফসিকে স্বাগত জানিয়েছেন এবারের লিগে। প্রত্যেক দলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ফেডারেশন সচিব কুশল দাসও। ভারতীয় দলের কোচ ইগর স্টিমাচ সব দলের ফুটবলারদের সঙ্গে ফটোশ্যুটে অংশ নিয়েছিলেন।  একই সঙ্গে স্টিমাচ জানিয়ে দেন আইলিগে ভাল পারফরম্যান্স করলে ভারতীয় ফুটবলারদের জাতীয় দলে তিনি ডাকবেন। ৩০ তারিখ থেকে শুরু হবে লিগের খেলা। প্রথম ম্যাচে আইজলের মাঠে মুখোমুখি আইজল এফসি ও মোহনবাগান। 

 

 

আরও পড়ুন - গোলাপি বলে মারকুটে মেজাজে কোহলি, বাংলাদেশ বধের ছক তৈরি ভারতের

এবারের লিগ চ্যাম্পিয়ন দলকে ১ কোটি টাকার আর্থিক পুরস্কার দেবে ফেডারেশন। লিগের রানার্সরা পাবে ৬০ লক্ষ টাকা। তৃতীয় স্থানে থাকা দল পাবে ৪০ লক্ষ টাকা। আর চতুর্থ স্থানে থাকা দল পাবে ২৫ লক্ষ টাকা। এবারের লিগের সবকটি ম্যাচই আট ক্যামেরায় সম্পচার করা হবে। ম্যাচ দেখা যাবে ডি স্পোর্টসে। তবে এতকিছুর মধ্যেও কলকাতার ফুটবল সমর্থকদের কাছে একটাই খারাপ খবর। ডার্বি ছাড়া এবার ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগানের আর একটাও ম্যাচ এই শহরে হচ্ছে না। ম্যাচ আয়োজনের খরচ বাঁচাতে কলকাতা ছেড়ে কল্যাণীকে হোম গ্রাউন্ড হিসেবে বেছে নিয়েছে দুই প্রধান। 

আরও পড়ুন - টি-২০ বিশ্বকাপের বদলা নিলেন স্মৃতিরা, ক্যারেবিয়ানদের হোয়াইট ওয়াশ করল ভারত