শীতের মরসুমে ইডেন গার্ডেন্সে গোলাপী বলের টেস্ট শহর কলকাতার কাছে একটা বড় প্রাপ্তি। কিন্তু এর মাঝেই ফুটবলে দুই বড় দলকে হারাতে চলেছে কলকাতা। ২০১৯-২০ মরসুমের আইলিগের সূচি প্রকাশ করল সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন। আর সেই সূচিতেই দেখা যাচ্ছে শহর কলকাতার জন্য খারাপ খবরটা। এবারের মরসুমে ইস্টবেঙ্গল বা মোহনবাগান, কোনও দলই তাদের হোম ম্যাচ কলকাতায় খেলবে না। দুই দলই নিজেদের হোম গ্রাউন্ড হিসেবে বেছে নিয়েছে কল্যাণী স্টেডিয়ামকে। শুধুমাত্র বড় ম্যাচ হবে কলকাতার যুবভারতীতে। 

আরও পড়ুন - অঙ্কের হিসেবেও আশা শেষ, অ্যাওয়ে ম্যাচে ওমানের কাছে আবার হার ভারতের

আইলিগের খসরা সূচি তৈরির সময় থেকেই এই কথা ময়দানে ঘোরা ফেরা করছিল। দুই দলই একটা সময় নিজেদের ঘরের মাঠে আইলিগের ম্যাচ আয়োজন করতে চেয়েছিল। ফ্লাড লাইটেও বসেছে। কিন্তু সেই দিকে থেকে সম্মতি দেয়নি এআইএফএফ। এবারও তাই হোম ম্যাচ আয়োজনের জন্য দুই প্রধানের কাছে ভরসা ছিল যুবভারতী বা কল্যাণী স্টেডিয়াম। যুবভারতীতে ম্যাচ আয়োজনের যা খরচ সেটা বহন করা তাদের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। পাশাপাশি আইলিগ ও আইএসএল দুটোই যুবভারতীতে আয়োজন করার ক্ষেত্রেও কিছু সমস্যা দেখা গিয়েছিল গত মরসুমে। তাই কলকাতার দুই প্রধান শহর ছেড়ে কল্যাণীকে নিজেদের হোম গ্রাউন্ড হিসেবে বেছে নিয়েছে। এই সিদ্ধান্তে একটা বড় অংশের সমর্থক যে খুশি হতে পারবেন না সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। মাঠে বসে দলের হয়ে গলা ফাটোনার বদলে তাদের ভরসা টেভির পর্দা। 

আরও পড়ুন - গোলাপি বলের বিপ্লবে অতিথি সংশয়, মমতা-হাসিনার সঙ্গে মঞ্চে সম্ভবত নেই অমিত শাহ

৩০ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে এবারের আইলিগ। প্রথম দিনই অ্যাওয়ে ম্যাচে মাঠে নামতে চলেছে মোহনবাগান। আইজলের রাজীব গান্ধি স্টেডিয়ামে আইজল এফসি ও মোহনবাগান ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে এবারের আইলিগ। সেদিনই দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হতে চলেছে, গোকুলাম ও নেরোকা এফসি। ইস্টবেঙ্গল তাদের প্রথম ম্যাচ খেলবে রিয়াল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে। চার তারিখ কল্যাণী স্টেডিয়ামে নামবে লাল হলুদ ব্রিগেড। গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সিটি এফসি প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছে ১ ডিসেম্বর। মরসুমের প্রথম ডার্বি ২২ ডিসেম্বর। সেটি মোহনবাগানের হোম ম্যাচ। আর দ্বিতীয় ডার্বি ১৫ মার্চ। এই দুই ম্যাচই হবে যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে। 

আরও পড়ুন - ৭২ ঘণ্টা আগেও পিঙ্ক বল উত্তেজনায় 'বিরাট' আক্ষেপ টিকিট, ফিট সার্টিফিকেট পেল ইডেন