১৯৮৬ ফুটবল বিশ্বকাপে শেষ বার বিশ্বজয়ের স্বাদ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। কার্যত একক দক্ষতাতেই দেশকে বিশ্বকাপ দিয়েছিলেন দিয়াগো মারাদোনা। কিন্তু ৮৬ বিশ্বকাপ বলতে শুধু মারাদোনাকেই সব থেকে বেশি মনে রেখেছেন সকলে। কিন্তু যার কোচিংয়ে বিশ্বজয় করেছিল নীল-সাদা ব্রিগেড তার নাম কার্লোস বিলার্দো। যার নাম শুধু আর্জেন্টাইন ফুটবল নয়, বিশ্ব ফুটবলের ইতিহাসেও স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে কার্লোস বিলার্দোর নাম। সেই বিশ্বকাপ জয়ী আর্জেন্তাইন কোচ এবার আক্রান্ত হলেন করোনা ভাইরাসে।

আরও পড়ুনঃপরিবারে একের পর এক করোনার থাবা,রাতের ঘুম কেড়েছে সৌরভের

বর্তমানে ৮২ বছর বয়স কার্লোস বিলার্দোর। পরিবারের সূত্রে জানানো হয়েছে, নানাবিধ শারীরীক সমস্যা নিয়ে বিগত দু’বছর ধরে বুয়েনস আয়রসের একটি নার্সিংহোমে চিকিৎসাধীন বিলার্দো। এরইসঙ্গে সম্প্রতি করোনা ভাইরাস টেস্ট করা হয় বিশ্বকাপ জয়ী কোচের। সেই রিপোর্ট পজেটিভ আসার পর থেকেই চিন্তা বেড়েছে পরিবারের। ৮২ বছর বয়সে নানাবিধ রোগ একসঙ্গে বাসা বাঁধার কারণেই চিন্তায় রয়েছেন চিকিৎসকেরা। তবে শরীরে মারণ ভাইরাসের কোনওরকম উপসর্গ দেখা দেয়নি বলে জানিয়েছে বিলার্দোর পরিবার। আপাতত স্থিতিশীল রয়েছেন বিশ্বকাপ জয়ী কোচ।

আরও পড়ুনঃঅবশেষে করোনা আবহেই এশিয়া মহাদেশে ফিরল ক্রিকেট,আশার আলো ক্রিকেট মহলে

আরও পড়ুনঃ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপে সচিন-সৌরভকে খেলতে দেননি দ্রাবিড়,সামনে এল বিস্ফোরক তথ্য

বিলার্দোর আরোগ্য কামনা করেছে তাঁর প্রাক্তন ক্লাব এস্তাদিয়ান্তেস। ১৯৬৮-৭০ আর্জেন্তিনার এই ক্লাবের হয়েই ফুটবলার হিসেবে তিনবার কোপা লিবার্তাদোরেস জিতেছিলেন বিলার্দো। তবে কোচ হিসেবে মেক্সিকোর মাটিতে ১৯৮৬ আর্জেন্তিনাকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করাই এই আর্জেন্তাইনের সবচেয়ে বড় কীর্তি। ইতালিতে পরের বিশ্বকাপে তাঁর প্রশিক্ষণেই ফাইনালে পৌঁছেছিল আর্জেন্তিনা। ফুটবলার, ফুটবল কোচিংয়ের পাশাপাশি একজন চিকিৎসকও ছিলেন বিলার্দো। কিংবদন্তী এই ফুটবল ব্যক্তিত্বের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন দিয়াগো মারাদোনাও। দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন ফুটবল বিশ্বও।