আইএসএলের ইতিহাসে অন্যতম সফল দল এটিকে। তিন বার চ্যাম্পিয়নের শিরোপা ঘরে তুলেছে কলকাতার দলটি। তবে এবছর মোহনবাগানের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে এটিকে মোহনবাগান হিসেবে আত্মপ্রকাশ হয়েছে নতুন দলের। তবে কটাক্ষ করতেও ছাড়ছে ইষ্টবেঙ্গল সমর্থকরা। জোটবদ্ধ হয়ে নিজেদের লোগো ও জার্সির রংকে এটিকে জলাঞ্জলি দিয়েছে বলে মত লাল-হলুদ সমর্থকদের। নয়া দলের লোগোতে মোহনবাগানে পাল তোলা নৌকাকেই মান্যতা দেওয়া হয়েছে। জার্সির রঙও থাকছে সবুজ মেরুণ। শুধু লোগোতে মোহনবাগান নামের আগে বসছে এটিকে। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ইষ্ট-মোহন সমর্থকদের চলছে তুমুল লড়াই।

আরও পড়ুনঃলাইসেন্সিংয়ের জন্য ইষ্টবেঙ্গলকে অতিরিক্ত ৭ দিন সময় দিল ফেডারেশন

এবার সেই বিতর্কে নাম জড়িয়ে ফেললেন ইন্ডিয়ান সুপার লিগের উদ্বোধনী মরশুমে এটিকের মার্কি প্লেয়ার ছিলেন লুইস গার্সিয়া।  প্রথম মরশুমে এটিকেকে আইএসএল চ্যাম্পিয়ন করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেন একদা বার্সেলোনা, লিভারপুল, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের হয়ে মাঠে নামা স্প্যানিশ তারকা। বর্তমানে ভারতীয় ফুটবল থেকে দূরে থাকলেও প্রাক্তন ক্লাব সম্পর্কে খোঁজখবর রাখেন তিনি। সম্প্রতি  প্রখ্যাত ফুটবল প্রেজেন্টার জোসেফ মরিসন। তিনি টুইট করেন, ‘আমি আনন্দিত যে, ওরা মোহনবাগানের রং, নকশা ধরে রেখেছে। এতে ঐতিহ্য ও মাহাত্ম্য সংরক্ষিত হল। তবে কোনও সন্দেহ নেই যে, অদূর ভবিষ্যতে এটিকে শব্দটাও সরে যাবে।’ মরিসনের টুইটের প্রতিক্রিয়ায় লুইস গার্সিয়া কার্যত হতাশা প্রকাশ করেন এটিকের সিদ্ধান্তে। তিনিও সহমত প্রকাশ করেন টেনিভিশন প্রেজন্টারের মন্তব্যে। গার্সিয়া লেখেন, ‘আমিও একমত। আমি ক্লাবের ঐতিহ্যকে সম্মান জানাই। তবে নিতান্ত আমার মত, এটিকেকে আরও একটু প্রাধান্য দেওয়া উচিত ছিল। যখন থেকে ইন্ডিয়ান সুপার লিগ শুরু হয়েছে, এটিকেই সবথেকে সফল দল। তাকে এভাবে ছুঁড়ে ফেলা ঠিক নয়।’

 

 

আরও পড়ুনঃকরোনা সংক্রান্ত নিয়ম ভাঙার জের,ম্য়াচ শুরু কিছু সময় আগে বাদ পড়লেন আর্চার

আরও পড়ুনঃভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের মাঝেই শুরু হচ্ছে বিগ ব্যাশ লিগ

গার্সিয়ার এই একটি ট্যুইট তাকে মোহনবাগান সমর্থকদের শ্ত্রু করে তুলেছে। গার্সিয়ার নিতান্ত ব্যক্তিগত মতামত হলেও, তাকে কটাক্ষ করতে ছাড়ছেন বাগান সমর্থকরা। মোহন বাগান ক্লাবের ঐটিহ্য ও ইতিহাসও গার্সিয়ার সামনে তুলে ধরছেন সকলে। প্রাক্তন দলের প্রতি ভালবাসা থেকে এই মন্তব্য  গার্সিয়া করলেও, বর্তমানে বিতর্কে জড়িয়ে গিয়েছেন স্প্যানিশ তারকা। গার্সিয়ার সমর্থনে ব্যাটন ধরছেন লাল-হলুদ সমর্থকরা। ফলে সশ্যাল মিডিয়া বর্তমানে সরগরম এটিকে ও মোহনবাগানের জোটবদ্ধ হওয়ার ইস্যুতে।