গত ১৬ মে থেকে ফিরেছে জার্মান বুন্দেশলিগা। চলতি মাসে ফিরছে তিনটি তিনটি বিশিব ফুটবলের জনপ্রিয় লিগ। তবে সবার আগে ১১ জুন থেকে শুরু হচ্ছে লা লিগা। ১৭ জুন থেকে শুরু হচ্ছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও ২০ জুন থেকে শুরু হচ্ছে ইতালির লিগা সিরি এ। বুন্দেশলিগার মতই লা লিগা শুরুর ক্ষেত্রে একাধিক নিয়াম লাগু করছে লিগ কর্তৃপক্ষ।  তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ম্যাচের দিন দু’দলের ফুটবলার, কোচ, ব্রডকাস্টার টিম, সাংবাদিক মিলিয়ে মোট ২৫০ জন স্টেডিয়ামে থাকবে। আর ম্যাচের আগে ফুটবলার ছাড়াও মাঠে যারা থাকবে, প্রতি সদস্যরেই করোনা পরীক্ষা করা হবে। মাঠে কেউ একে অপরের সঙ্গে করমর্দন করতে পারবে ‌না। মাঠে কেউ থুতু ফেলবে না। কেউ সতীর্থকে জড়িয়ে সেলিব্রেট করবে না। ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে বা শেষ হওয়ার পর প্রত্যেক ফুটবলার ও কোচকে মাস্ক ও গ্লাভস পরতে হবে। আবার দু’সেট কিট সঙ্গে রাখতে হবে সবাইকে। হাফ-টাইমের পর ‌‌নতুন‌ কিট পরে ফুটবলারদের মাঠে নামতে হবে। একই দলকে দু’টো টিম বাস করে মাঠে আসতে হবে। ম্যাচ শেষে সাংবাদিক সম্মেলন হবে অনলাইনে। এছাড়াও দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে ম্যাচ হওয়ার কারণে ঘরে বসে দর্শকদের জন্য থাকছে ভার্চুয়াল স্ট্যান্ড। যা করোনা পরবর্তী লা লিগার মূল আকর্ষণ বলে মনে করছেন সকলে।

আরও পড়ুনঃপ্রথম ম্যাচ থেকেই খেলবেন মেসি,জানিয়ে দিলেন বার্সা কোচ

আরও পড়ুনঃঘানার ফুটবলারকে মুম্বাই এয়ারপোর্ট থেকে উদ্ধার যুব সেনার

লা লিগা কর্তৃপক্ষের ভার্চুয়াল স্ট্যান্ডের বিষয়টি ঘোষণার পরই অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে কী হতে চলেছে এই ভার্চুয়াল স্ট্যান্ডের মাধ্যমে। 
সম্প্রচারকারীরা এই ব্যবস্থা করছে লা লিগা ম্যাচ লাইভ দেখার সময় যাতে সবাই সমর্থক ভরতি গ্যালারির ভারচুয়াল ইমেজ দেখতে পায়। এছাড়াও সমর্থকদের চিৎকারের আওয়াজও ধার নেওয়া হচ্ছে ফিফা নামক ভিডিও গেম থেকে। ম্যাচ চলাকালীন যে আওয়াজের রেকর্ডিং চালানো হবে। এই সমস্ত কিছু করা হচ্ছে যাতে টিভির সামনে বসেও দর্শকরা মাঠের আবহটা অনুভব করতে পারে। এই বিষয়ে লা লিগা ইন্ডিয়ার প্রধান জোস কাকাজা বলেন, “এতে কোনও সন্দেহ নেই আমরা সবাই দর্শকদের খুব মিস করব। তবে আগামী মরশুমে সমর্থকরা হয়তো মাঠে ফিরতে পারে। সবকিছুই অবশ্য নির্ভর করবে পরিস্থিতির উপর। টিভির সামনে বসে বা ফেসবুকে যাঁরা লাইভ ম্যাচ দেখবেন, তাঁদের জন্য মনোরঞ্জক একটা প্যাকেজ তৈরি করার চেষ্টা করছি আমরা। যেমন নরওয়ের এক সংস্থা ও মিডিয়াপ্রো-র সঙ্গে যুক্ত হয়ে ‘ভারচুয়াল স্ট্যান্ড’ দেখানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে টিভি বা ফেসবুক দর্শকদের জন্য।” তবে স্বাভাবিক দর্শকশূন্য মাঠের শব্দেও খেলার দেখার অপশন থাকছে দর্শকদের জন্য। দইয়ের স্বাদ গোলে মিটলেও ঘরে বসে ম্যাচ দেখার জন্য লা লিগা কর্তৃপক্ষের এই নতুন ব্যবস্থায় খুশি বিশ্বজুড়ে ফুটবল প্রেমিরা। 

আরও পড়ুনঃক্রিকেটে বর্ণবৈষম্যের ৫ টি ঘটনার ওপর চোখ বুলিয়ে নিন একনজরে