চলতি বছরের ২০ মার্চ প্রয়াত হন ভারতীয় ফুটবলের কিংবদন্তী ফুটবলার পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়।  কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে প্রবাদ প্রতীম ফুটবলারের শেষ যাত্রায় পাশে থাকতে পারেননি কেউই। যেই দুঃখ বা আফসোস অই জীবনে মিটবার নয় পিকে বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের অনুগামীদের। কিন্তু আজ ২৩ জুন ছিল পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৮৪ তম জন্মদিন। গত বছর এই দিনে বাড়িতে নিজের হাতে কেক কেটে দিনটি উদযাপন করেছিলেন পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এবছর পরিবেশ সম্পূর্ণ আলাদা। শ্রদ্ধার সঙ্গে পালন করা হল ভারতীয় ফুটবলের ভোকাল টনিক কোচ পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্মদিন।

আরও পড়ুনঃমহামারীকে চ্যালেঞ্জ জানানোর খেসারত,এবার করোনা আক্রান্ত নোভাক জকোভিচ

মঙ্গলবার তার জন্মদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ প্রসূণ বন্দ্যোপাধ্যায়, তার দুই কন্যা ও বিশিষ্ট ফুটবলাররা। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়ের অগুনতি ভক্তরা। অনুষ্ঠান থেকে পিকে বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার স্ত্রীর নামাঙ্কিত একটি ট্রাস্টের ঘোষণা করেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। এই ট্রাস্ট আগামী দিনে নতুন ফুটবলারদের তৈরি করবেন। অনুষ্ঠানে শারীরিক অসুস্থতার কারণে উপস্থিত না থাকতে পারলেও অনলাইনের মাধ্যমে পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়কে সম্মান জানাতে একাধিক ঘোষণা করেন রাজ্যের মন্ত্রী পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানান, পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির সামনের মাঠচি প্রয়াত কিংবদন্তী ফুটবলারের নামে করা হবে। দুটি পূর্ণ মূর্তি তৈরি করা হবে যা একটি সল্টলেকে আরেকটি লেকটাউনে স্থান পাবে। পাশাপাশি চুনী গোস্বামীরও মূর্তি তৈরি করা হবে বলে জানিয়েছেম মন্ত্রী সুজিত বসু।

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসের জের,সাড়ম্বরহীন আন্তর্জাতিক অলিম্পিক দিবস

আরও পড়ুনঃকরোনা যোদ্ধাদের সম্মান জানাতে অভিনব উদ্যোগ ইসিবির

পিকে বন্দ্যোপাধ্যায় শিশুদের খুব ভালোবাসতেন তাই আজ তাঁর জন্মদিনে বিধান নগর মিউনিসিপ্যালিটি স্কুলের বাচ্চাদের জন্য বেশ কিছু সামগ্রী তুলে দেয়া হয়। এবং একটি টাকার অংক তুলে দেয়া হয় আমফান কবলিত এলাকায় সুন্দরবন এ যে সমস্ত ফুটবলাররা আছেন তাদের সাহায্যার্থে ব্যবহৃত হবে। এছাড়াও দীর্ঘদিন অসুস্থতা থাকাকালীন পিকে বন্দ্যোপাধ্যায় যে অটোমেটিক খাটে থাকতেন সেই খাটটিও যেকোনো একটি সরকারি হাসপাতাল এ দান করা হবে। কোনও খেলোয়ার অসুস্থ হলে সেই বেডে থাকার জন্য অগ্রাধিকার পাবে। মঙ্গলবার এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইটে সূচনা করা হয় ওয়েবসাইটটির নাম www.pkbanerjee.com