করোনা আবহেই বিশ্ব জুড়ে শুরু হয়েছে ফুটবল লিগগুলি। প্রিয় তারকাদের বল পায়ে মাঠে দেখতে পেয়ে আতঙ্কের মধ্যেও কিছুটা স্বস্তি পেয়েছেন বিশ্ব জুড়ে তাদের অনুগামীরা। এত সব কিছুর মধ্যেও কিন্তু নিজের মারণ থাবা বজায় রেখেছে করোনা ভইরাস। মারণ ভাইরাসে আতক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন আরও এক কিংবদন্তী ফুটবলার। এবার কোভিড ১৯ কেড়ে নিল ইরাকের ফুটবল কিংবদন্তি আহমেদ রাধি  প্রাণ। তার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা ইরাক। ৫৬ বছর বয়সী রাধি ইরাকের ইতিহাসের সেরা ফুটবলার। ইরাকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী তাঁর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুনঃবউদির পর এবার কি করোনা আক্রান্ত সৌরভের দাদা,কী জানাল বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের পরিবার

ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে ইরাকের হয়ে একনমাত্র গোলদাতা আহমেদ রাধি। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের বিরুদ্ধে গোল তাকে জাতীয় হিরোর তকমা এনে দিয়েছিল।  ইরাকের মানুষ তাঁকে জাতীয় বীরের সম্মান দিতেন। গত সপ্তাহে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন রাধি। এর পর তাঁকে বাগদাদের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় হাসপাতাল থেকে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। কিন্তু কয়েক ঘণ্টা পর আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এর পর আর চিকিত্সায় সাড়া দিচ্ছেলেন না তিনি। উন্নত চিকিৎসা দেওয়ার জন্য রাধিকে জর্ডনে নিয়ে যাওয়ার কথাও ভেবেছিলেন তাঁর পরিবার। কিন্তু সময় দিলেন না তিনি। রবিবার শে, নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ইরাকের ইতিহাসে সেরা ফুটবলার।

আরও পড়ুনঃভয়ঙ্কর বিপদে বাংলাদেশ ক্রিকেটার তামিম ইকবালের পরিবার

আরও পড়ুনঃপরিবার সহ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত আরও এক বাংলাদেশ ক্রিকেটার

ফুটবল জীবনে একাধিক কৃতিত্বের অধিকারী ছিলেন আহমেদ রাধি। শুধু দেশের হয়ে বিশ্বকাপে একমাত্র গোলদাতার তকমাই নয়,১৯৮৪ এবং ১৯৮৮ সালে গালফ কাপ জিতেছিল ইরাক। সেই দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন রাধি। এশিয়ার বর্ষসেরা ফুটবলারের শিরোপাও জিতেছেন এই কিংবদন্তী ফুটবলার। আহমেদ রাধির মৃত্যুর খবরে শোক প্রকাশ করেছে ইরাক প্রশাসন। একইসঙ্গে মারণ ভাইরাসের প্রকোপে ফুটবল কিংবদন্তীর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ ফুটবল বিশ্ব।