লকডাউন পরবর্তী সময়ে ফুটবলের শুরুটা খুব একটা সুখকর হয়নি ইংলিশ প্রিমিয়ারের লিগে চ্যাম্পিয়নশিপের দোরগোরায় দাঁড়িয়ে থাকা দল লিভারপুলের। ইপিএলের প্রত্যাবর্তনের প্রথম ম্য়াচে এভার্টনের বিরুদ্ধে গোল শূন্য ড্র করেছিল য়ুর্গান ক্লপের দল। যার ফলে ৩০ বছর পর ইপিএল খেতাব জয় আরও কিছুটা দীর্ঘায়িত হয়েছিল। কিছুটা হতাশও হয়ছিলেন ক্লপ সহ গোটা লিভারপুল দল। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচেই চেনা ফর্মে ফিরল লিভারপুল। ক্রিস্টাল প্যালেসকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে খেতাব জয়ের দোরগোড়ায় চলে গেল রেড ডেভিলসরা।

আরও পড়ুনঃমার্শিয়ালের দুরন্ত হ্যাটট্রিক, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আশা জিইয়ে রাখলো ম্যান ইউ

ক্রিস্টালের বিরুদ্ধে ম্যাচের দুই অর্ধে ২টি করে গোল করে লিভারপুল। প্রথমার্ধে ২৩ মিনিটে গোলের খাতা খোলেন আলেকজান্ডার-আর্নল্ড। ৪৪ মিনিটে গোল করেন সালাহ। দ্বিতীয়ার্ধে ৫৫ মিনিটে গোল করে ব্যবধান বাড়ান ফ্যাবিনহো। ৬৯ মিনিটে শেষ গোলটি করেন সাদিও মানে।এই জয়ের সুবাদে ৩১ ম্যাচে লিভারপুলের পয়েন্ট দাঁড়ায় ৮৬। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যাঞ্চেস্টার সিটির সংগ্রহ ৩০ ম্যাচে ৬৩ পয়েন্ট। অর্থাৎ, নিজেদের বাকি ৭টি ম্যাচে আর মাত্র ২ পয়েন্ট সংগ্রহ করলেই ম্যান সিটির ধরা-ছোঁয়ার বাইরে চলে যাবেন ক্লপরা এবং ৮৮ পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিশ্চিত করে ফেলবে লিভারপুল। সিটি তখন তাদের বাকি ৮টি ম্যাচ জিতেও ৮৭ পয়েন্টের বেশি তুলতে পারবে না। 

আরও পড়ুনঃ৩৩ পাউন্ডের কেক,৩৩ রকমের মিষ্টি সমাহারে 'মেসি মহলে' পালিত হল এলএমটেনের জন্মদিন

আরও পড়ুনঃ৩৩ এ পা লিও মেসির, দেখে নিন এলএমটেনের কেরিয়ারের সেরা ১০ পারফরমেন্স

এখন লিভারপুল সমর্থকদের তিরিশ বছর পরে লিগ জয়ের উৎসব পালনের মাঝে কাঁটা এখন শুধু পেপ গুয়ার্দিওয়ালার ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। আজ রাতে চেলসির মুখোমুখি হচে চলেছে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। যদি সিটি আজ আটকে যায় তাহলে পরের ম্যাচে নামার আগেই ইপিএলের খেতাব উঠবে য়ুর্গান ক্লপের দলের হাতে। ১৯৯০-এর পর ফের স্বপ্নপূরপণ হবে লিভারপুল সমর্থকদের। কিন্তু আজ সিটি জিতলে পরের ম্যাচে সিটি ও লিভারপুলের মেগা ম্যাচেই নির্ধারিত হবে সালহা, মানেদের ভাগ্য।