করোনা আবহে গত ১৬ মে থেকে জার্মানিতে ফিরেছে বুন্দেশলিগা। জার্মানির ফুটবল লিগ দিয়েই করোনা পরবর্তী সময়ে বিশ্ব জুড়ে শুরু হয়েছে ফুটবল যজ্ঞ। চলতি মাসে ফিরছে আরও তিনটি জনপ্রিয় লিগ। ১১ তারিখ লা লিগা, ১৭ তারিখ ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ আর ২০ ইতালির লিগা সিরি এ। লা লিগায় ১৪ জুন মাঠে নামছে বার্সা। অপরদিকে একইদিনে কোপা ইটালিয়ায় মাঠে নামছে জুভেন্তাস। একইদিনে মেসি-রোনাল্ডোর মাঠে ফেরার খবরে বিশ্ব জুড়ে চড়ছিল উন্মাদনার পারদ। কিন্তু এরই মধ্যে এল দুঃসংবাদ। অনুশীলনে চোট পেয়ে প্রথম ম্যাচে অনিশ্চিত বার্সার ফুটবল-ঈশ্বর লিওনেল মেসি।

আরও পড়ুনঃতৈরি হচ্ছে সম্ভাবনা,বিদেশের মাটিতেও আইপিএল করতে প্রস্তুত বিসিসিআই

বার্সেলোনা সূত্রে খবর,গত মঙ্গলবারের ট্রেনিং সেশনের পর হঠাৎই ডান পায়ের পেশিতে ব্যথা অনুভব করেন মেসি। এমআরআই করার পরে জানা যায় মেসির পেশিতে সামান্য চিড় ধরেছে। অন্তত দশ দিন লাগবে মেসির সুস্থ হতে। ফলে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে মায়োরকার বিরুদ্ধে বার্সার হয়ে মাঠে নামতে পারবেন‌ তো দলের সেরা প্রতিভা? বুধবার মেসিকে গ্রুপের সঙ্গে অনুশীলন করতে দেওয়া হয়নি যাতে চোট আরও গুরুতর দিকে না যায়।  বৃহস্পতিবার বার্সেলোনার অনুশীলনে নামেননি মেসি। মিডিয়া সূত্রের খবর মেসির চোট বেশ গুরুতর কিন্তু ক্লাবের সমর্থকদের দুশ্চিন্তা কমাতে সেটা কম দেখানো হচ্ছে।

আরও পড়ুনঃমহিলা এএফসি এশিয়ান কাপ আয়োজনের দায়িত্ব পেল ভারত, জেনে নিন বিস্তারিত

আরও পড়ুনঃমুশফিকুর সহ বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের অনুশীলনের অনুমতি দিল না বিসিবি

১৪ জুন ভারতীয় সময় রাত দেড়টায় মায়োরকার বিরুদ্ধে খেলতে নামবে বার্সেলোন। শক্তির বিচারে প্রতিপক্ষ দুর্বল হলেও, প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে তা হালকা ভাবে নিচ্ছে না বার্সা ম্যানেজমেন্ট। তারউপর লিগের প্রথম স্থান ধরে রাখার চাপও রয়েছে। কিন্তু লা লিগা শুরুর আগে মেসির চোটের কারণে অস্বস্তিতে টিম ম্যানেজমেন্ট।  ১৪ জুন মাঠে নামার পর ৫ সপ্তাহেই ১১ ম্যাচ খেলবে বার্সেলোনা। যার কারণ মেসিকে নিয়ে একটু বাড়তি সতর্কতাই অবলম্বন করছে বার্সা। পরের দিকে বড় দলগুলির বিরুদ্ধে যাতে মেসিকে পাওয়া সেটাই লক্ষ্য ক্লাব কর্তৃপক্ষের। প্রাথমিকভাবে মেসির চোটের যা পরিস্থিতি তাতে মনে করা হচ্ছে ১৪ তারিখের প্রথম ম্যাচে বল পায়ে ফুটবল ঈশ্বরের যাদু দেখার থেকে বঞ্চিতই থাকবে বিশ্ব জুড়ে ফুটবল প্রেমি ও মেসি ভক্তরা।