করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে নেমেছে গোটা দেশ। ইতিমধ্যেই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৯০০ ছাড়িয়েছে। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। পশ্চিমবঙ্গকেও করোনা ভাইরাস আতঙ্ক গ্রাস করেছে। রাজ্যে এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫। ঘটেছে মৃত্যুর ঘটনাও। রাস্তায় নেমে পরিস্থিতির মোকাবিলা করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। হাসপাতাল হাসপাতাল ভিসিট করছেন তিনি। স্বাস্থ্য পরিষেবায় নিয়েছেন একাধিক পদক্ষেপ। জারি করা হয়েছে লকডাউন। শুধু রাজ্য সরকার নয়, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় এগিয়ে আসছেন সমাজের বিভিন্ন স্তরের বিশষ্টরা। এগিয়ে আসছে একাধিক সামাজিক সংগঠনও। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এ বার এগিয়ে এল মোহনবাগান।

আরও পড়ুনঃঘরবন্দি অবস্থায় গার্ডেনিংয়ে ব্যস্ত ভারতীয় দলের ইয়র্কার স্পেশালিস্ট

আরও পড়ুনঃঘরবন্দি অবস্থায় বাবার সঙ্গে নাচলেন যুজবেন্দ্র চাহল, সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও

চলতি মরসুমেই আইলিগ জিতেছে মোহনবাগান। কিন্তু করোনা জেরে হয়নি সেলিব্রেশন। কিন্তু রাজ্যের বিপদের সময় এগিয়ে এল এই শতাব্দী প্রাচীন ক্লাবটি। মুখ্যমন্ত্রীর বিপর্যয় মোকাবিলা তহবিলে ২০ লক্ষ টাকা দেওয়া হল মোহনবাগান ক্লাবের পক্ষ থেকে। ক্লাবের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে সেই খবর। মোহনবাগানের ফেসবুক পেজে লেখা হয়েছে, “ফুটবল মানে একতা। আবার ফুটবলের অর্থ মানবতাও। এই সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে আমরা সবাই মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করছি। জাতীয় ক্লাব হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বানে সাড়া দিয়ে রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা তহবিলে ২০ লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়া হল।’’

এই কঠিন পরিস্থিতিতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বানও জানিয়েছে ক্লাব। সমর্থকদের উদ্দেশে বার্তা দিয়েছেন সবুজ-মেরুনের আই লিগ জয়ের অন্যতম নায়ক ফ্রান গঞ্জালেজও। এক ভিডিও বার্তায় সমর্থকদের ঘরে থাকার অনুরোধ করেছেন তিনি। সেই ভিডিয়ো বার্তায় ‘দ্য বস’ বলেছেন, ‘‘স্পেন-সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনা-পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে। এ তো আপনাদের সবারই জানা। এই পরিস্থিতিতে সবাই ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন। আমি জানি আই লিগ জয় নিয়ে উচ্ছ্বাসে মেতে উঠতে চাইছেন সবাই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে আমরা আবার উচ্ছ্বাস করব।’’ 

করোনা ভাইরাস যেভাবে ধীরে ধীরে বাড়ছে, তাতে অন‌্য সবার মতো চিন্তিত হয়ে পড়েছে মোহনবাগান ক্লাবও। বিভিন্ন ক্রীড়া সংস্থা নিজেদের মতো করে এই বিপদের সময় অসহায় মানুষদের পাশে থাকার চেষ্টা করছেন। মোহনবাগান কর্তারা ঠিক করেন, এই বিপদের সময় অসহায় মানুষদের সেবার জন‌্য মুখ‌্যমন্ত্রীর হাত আরও শক্ত করবেন। তাই ২০ লক্ষ টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত। পাশাপাশি সবুজ-মেরুন কর্তাদের আশা, এরপর অন‌্যান‌্য ক্লাবও মুখ‌্যমন্ত্রীর এমার্জেন্সি রিলিফ ফান্ডে সাহায‌্য করে করোনা বিরোধী লড়াইয়ে পাশে থাকবেন। 

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে বেতন ও পেনশন দান লক্ষ্মীরতন শুক্লার