আইলিগের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল আইজল এফসি ও মোহনবাগান। লিগের প্রথম ম্যাচ দেখতে পাহাড়ের ফুটবল প্রেমীরা এসেছিলেন মাঠে। পাশাপাশি কলকাতা থেকে মোহনবাগান সমর্থকরাও গিয়েছিলেন আইজলে। কিন্তু ৯০ মিনিটের লড়াই শেষে কিছুটা হলেও হতাশ হতে হল তাদের। কারণ লিগের প্রথম ম্যাচে যে একটাও গোল হল না। দুই দলই এক পয়েন্ট করে পেল এই ম্যাচ থেকে। খেলার মধ্যে যে মোহনবাগানের দাপট কিছুটা হলেও বেশি ছিল সেটা বোঝা গেল ম্যাচ শেষে। কারণ একাধিক গোল বাঁচিয়ে ম্যাচের সেরা হলেন আইজলের গোলকিপার। প্রথম ম্যাচ থেকে এক পয়েন্ট বাগান শিবিরে। তবে গোল করার গোল কথায়? এই প্রশ্নটা প্রথম ম্যাচ থেকেই উঠতে শুরু করেছে।

 

 

আরও পড়ুন - জয় পেলেন লিয়েন্ডার পেজ, ডেভিস কাপে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিল ভারত

খেলার প্রথমার্ধে দাপট ছিল মোহনবাগানের। বাগান কোচ কিভু ভিকুনা কলকাতায় বলেছিলেন দলের সব বিদেশিকে এক সঙ্গে ব্যবহার নাও করতে পারেন। কিন্তু বাগান যখন মাঠে নামল তখন দেখা গেল দেখা পাঁচ বিদেশিকেই মাঠে নামিয়েছেন তিনি। বেইতিয়া, জুলেন কলিনাস ও ফ্রান গঞ্জালেজের ত্রিফলায় ভর করে একের পর এক আক্রণম করে সবুজ মেরুন ব্রিগেড। কিন্তু একাধিক গোলের সুযোগ তৈরি করেও গোল করতে পারেনি কিভুর দল। প্রথমার্ধে কিছুটা রক্ষণাত্মক পরিকল্পনায় দল মাঠে নামিয়েছিলেন আইজল কোচ স্ট্যানলি রোজারিও। তবে দ্বিতীয়ার্ধে খেলা অনেকটাই বদলে গেল তাদের। গোল পাওয়ার জন্য চাপ দিতে শুরু করে তারা। একাধিক সুযোগও তৈরি করে পাহাড়ের দল। ম্যাচের ৬৩ মিনিটে জোড়া পরিবর্তন করেন বাগান কোচ কিভু। ফ্রান মোরান্তে ও ব্রিটোকে তুলে নিয়ে সালভা চামারো ও শেখ সাহিলকে মাঠে নিয়ে আসেন মোহনবাগান কোচ। কিন্তু তাতে খুব একটা লাভ হয়নি।

আরও পড়ুন - কোচ ছাঁটাই ধোনির দলে, জন গ্রগরির সঙ্গে সম্পর্কে ইতি টানল চেন্নাইন এফসি

এবারের আইলিগের প্রথম ম্যাচ খেলার পর এবার মোহনবাগান ঘরের মাঠে নামতে চলেছে ৮ ডিসেম্বর। ঘরের মাঠে তাদের প্রতিপক্ষ চার্চিল ব্রাদার্স। তারপর ঘরের মাঠে আরও তিনটি ম্যাচ খেলবে সবুজ মেরুণ ব্রিগেড। প্রথম ম্যাচে থেকে তিন পয়েন্ট না পেলেও এক পয়েন্টকে খারাপ হিসেবে দেখতে রাজি নন মোহনবাগন সমর্থকরা। কিন্তু গোল করার লোকের অভাব কোথাও যেন প্রথম ম্যাচ থেকেই মোহনবাগানের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। অন্যদিকে কঠিন প্রতিপক্ষকে ঘরের মাঠে আটকে দিয়ে খুশি আইজললের তরুণ ব্রিগেডও। দ্বিতীয় ম্যাচে তারা মুখোমুখি হবে নেরোকা এফসির। 

আরও পড়ুন - ধোনিকে নিয়ে সম্পুর্ণ স্বচ্ছতা আছে, বলছেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়