বর্তমানে ভারতীয় দলের নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার সন্দেশ ঝিঙ্গান। সুনীল ছেত্রীর দলে না থাকলে ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্বও সামলেছেন তিনি। আন্তর্জাতিক হোক আর ক্লাব ফুটবল রক্ষণে সন্দেশ ঝিঙ্গান থাকলে তাকে ভেদ করে গোল দিতে কালঘাম ফেলতে হয় অনেক ফুটবলারকেই। কিন্তু জীবনের কঠিন সময়ে এই ফুটবলারকে কে অনুপ্রাণিত করেন জানেন। তিনি মাস্টার ব্লাস্টার সচিন তেন্ডুলকর। সচিন কেনও তার অনুপ্রেরণা সেই তথ্যও নিজেই জানালেন ভারতীয় ফুটবল দলের ডিফেন্ডার।

আরও পড়ুনঃআধুনিক ফুটবলে মেসিকেই সেরার শিরোপা দিলেন রোনাল্ডো

আইএসএলে প্রথম দিকে কেরল ব্লাস্টার দলের অন্যতম অংশীদার ছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। প্রথম ফাইনালে এটিকে কাছে হারতে হয় কেরল ব্লাস্টারকে। আইএসলের মত বড় টুর্নামেন্টের প্রথম ফাইনালে হার মেনে নিতে পারেননি সন্দেশ। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। সেই সন্দেশ ঝিঙ্গানের জীবন দর্শন বদলে দিয়েছিলেন সচিন। সোশ্যাল মিডিয়ায় এআইএফএফ টিভিতে সন্দেশ বলেছেন,'হারের পরে সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছিলাম। সচিন স্যর আমার কাছে এসে শান্ত ভাবে বলেছিলেন, ছ’বারের চেষ্টায় আমি বিশ্বকাপ জিততে সফল হয়েছি। প্রথম ফাইনালে হারের পরে ভেঙে পড়লে চলবে না।' সচিনের এই একটা কথা সন্দেশ ঝিঙ্গানের জীবন দর্শন বদলে দিয়েছিল। সেই কথা অকপট স্বীকার করেন সন্দেশ।

আরও পড়ুনঃশুরু হচ্ছে লা লিগা,তার আগে জেনে নিন লিগের ইতিহাসে সেরা ১০ লেজেন্ড কারা

আরও পড়ুনঃদরজায় কড়া নাড়ছে লা-লিগা, চিনে নিন লিগের ইতিহাসে সেরা গোলকিপারদের

মাঝে চোটের জন্য দীর্ঘ দিন মাঠের বাইরে ছিলেন সন্দেশ। চোট সারিয়ে সুস্থ হয়ে মাঠে ফেরার যেই সময় আসল তখনই দেশ জুড়ে দেখা দেয় করোনা ভাইরাসের দাপট। শুরু হয় লকডাউন। নমানসিকভাবে ফের কিছুটা ভেঙে পড়লেও, সচিনের কথা ফের চাঙ্গা করে দেয় সন্দেশকে। তারপর থেকে অনুশীলনে বন্ধ করেননি তিনি। গৃহবন্দি অবস্থা নিজেকে ফিট রাখতে যাবতীয় শরীরচর্চা কেরছেন। তাঁর কথায়,'সচিন স্যরের ইতিবাচক মানসিকতা সংক্রমণের মতো। কাছাকাছি থাকলেই নিজেকে অনেক বেশি উদ্বুদ্ধ লাগে। এই কারণেই সচিন স্যর কিংবদন্তি।' আজীবন সচিন তেন্ডুলকরের সেই কথা মনে থাকবে ও মেনে চলবেন বলে জানিয়েছেন ভারতীয় দলের নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার।