ব্যালন ডি অরের মননোয়ন পেলেন মেসি, রোনাল্ডোরা। মননোয়ন তালিকায় স্থান হল না পিএসজি ও ব্রাজিল ফুটবলার নেইমার জুনিয়র। ফ্রান্সের এই সর্বোচ্চা ফুটবলারদের প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকেন মেসি রোনাল্ডোরা। তবে গত বছরে সেই ব্যালন ডি অরের খেতাব উঠেছিল ক্রোয়েশিয়ার লুকা মদ্রিচের হাতে। রিয়াল মাদ্রিদ ও নিজের দেশের হয়ে ভালো খেলার সুবাদে গত ১০ বছরের রেকর্ড ২০১৮ সালে ভেঙে দিয়েছিলেন মদ্রিচ। ২০১৮ সালের আগে এই পুরস্কার শুধু মাত্র ঘোরা ফেরা করতো রোনাল্ডো ও মেসির মধ্যে। আর সেই রেকর্ড ভেঙে দিয়ে ২০১৮ সালে ব্যালন ডি অর পেয়ে চমক দিয়েছিলেন লুকা।

আরও পড়ুন, হার দিয়ে আইএসএল মরশুম শুরু এটিকের, প্রথম ম্যাচেই রেফারিং নিয়ে উঠলো প্রশ্ন


এবছরও মেসি ও রোনাল্ডোর পাশাপাশি ভার্জিল ভ্যান ডাইকও ঢুকে গিয়েছে ব্যালন ডি অরের লড়াইয়ে। এবছর মূল লড়াইটা হবে এই তিন জনের মধ্যেই। লিভারপুল ও নেদারল্যান্ড দলের ভ্যান ডাইক এবছর দারুণ খেলেছেন লিভারপুলের হয়ে। একই সঙ্গে বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনার হয়ে সেই ভাবে নজর কাড়তে দেখা যায়নি মেসিকে। অপরদিকে, নিজের সাধারণ ছন্দে রয়েছেন জুভেন্তাস ও পর্তুগল নায়ক ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তবে ফিফার বর্ষসেরা দৌড়ে এবছর এগিয়ে ছিলেন ভ্যান ডাইক। আর সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে ফের একবার পুরস্কার নিয়ে গিয়েছেন মেসি। সেই সঙ্গে ফিফার বিরুদ্ধে চেনা মুখেদের বারবার তোষণ করার অভিযোগও তুলেছিল একদল ফুটবল কর্তা থেকে সমর্থকরা। তবে ফ্রান্সের এই পুরস্কার এবার কার হাতে উঠবে সেটাই এখন দেখার।

আরও পড়ুন, পেনাল্টি মিস বেইতিয়ার, এগিয় থেকেও শেখ কামাল কাপের প্রথম ম্যাচে হার মোহনবাগানের
সোমবার ইতিমধ্যেই ৩০ জন ফুটবলারের তালিকা ঘোষণা করে হয়েছে ব্যালন ডি অরের জন্য। আর সেই তালিকার মধ্যে মেসি, রোনাল্ডো ও ভ্যান ডাইকই এই মুহূর্তে সেরার লড়াইয়ে আছেন। এই তিন জনকে ছাড়া এই তালিকায় রয়েছেন সার্জিও অ্যাগুয়ারো, পিএসজি ও ফ্রান্সের এমবাপে, ইডেন হ্যাজার্ড, লিভারপুলের মহম্মদ সালা থেকে শুরু করে গ্রিজম্যান ও বেঞ্জেমা সহ আরও অনেকে। তবে চূড়ান্ত ভাবে কাকে বেছে নেওয়া হবে সেরার সেরা। সেটাই এখন সময়ের অপেক্ষা। আগামী ২ ডিসেম্বর প্যারিসে হতে চলেছে ব্যালন ডি অরের অনুষ্ঠান।