দেশের আইআইটি-র মতো উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি করোনার মোকাবেলায় নিয়মিত তাদের উদ্ভাবনী শক্তি কাজে লাগাচ্ছে। সম্প্রতি, আইআইটি-বোম্বাইয়ের এক গবেষকদল আবিষ্কার করেছেন একটি স্মার্ট স্টেথোস্কোপ। এর সাহায্যে নিকটবর্তী করোনায় আক্রান্ত কোনও ব্যক্তির হার্ট রেট বা শব্দটি দূর থেকে শনাক্ত করা এবং এটি রেকর্ডও করতেও সক্ষম। এই স্মার্ট স্টেথোস্কোপ এর সুবিধাটি হল চিকিত্সকরা সংক্রামিত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পাবেন। স্মার্ট স্টেথোস্কোপের সাহায্যে রোগীর বুকের অ্যাসক্ল্যাটেড সাউন্ড এবং ডেটা ব্লুটুথের সাহায্যে ডাক্তারের কাছে পৌঁছে যাবে, যাতে তাদের রোগীদের কাছাকাছি যেতে না হয়।

আরও পড়ুন- ঘরবন্দি অবস্থায় সুস্থ থাকতে নিয়মিত করুন যোগা, দেখে নিন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

ইতিমধ্যেই আইআইটি-বোম্বাইয়ের দলও এই ডিভাইসের পেটেন্ট পেয়েছে। এটি রোগীর হার্ট রেট বা শব্দটি রেকর্ড করবে এবং এটিকে তার স্বাস্থ্যের রেকর্ডও সংরক্ষণ করবে। এর সাহায্যে একজন রোগীর হেল্থ রিপোর্ট একজন চিকিৎসক অন্য চিকিৎসকের সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন। এটি আইআইটি প্রযুক্তি বিজনেস ইনকিউবেটর দ্বারা পরিচালিত স্টার্টআপ 'এজডেভাইস' দ্বারা ডিজাইন করা হয়েছে। সম্প্রতি এক হাজার স্টেথোস্কোপ সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে প্রেরণ করা হয়েছে। এটি রিলায়েন্স হাসপাতাল এবং পিডি হিন্দুজা হাসপাতালের চিকিত্সকদের কাছ থেকে ক্লিনিকাল ইনপুট নিয়ে প্রস্তুত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- মোদীর মুখে আয়ুষ-এর কথা, 'ইমিউনিটি' বাড়াতে কী গাইড লাইন দিচ্ছে মন্ত্রক

গবেষকদের মতে, করোনায় আক্রান্তের শ্বাস নিতে অনেক সমস্যা হয়। এখনও অবধি,  চিকিত্সার জন্য করোনা সংক্রামিত মানুষের বুকের শব্দ শুনতে চিকিত্সকরা স্টেথোস্কোপ ব্যবহার করছিলেন। যার ফলে তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনাও অনেক বেশি। এমন পরিস্থিতিতে চিকিৎসকদের দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়ে যায়। সম্প্রতি চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সংক্রামিত হওয়ার বেশ কয়েকটি ঘটনা ইতিমধ্যেই শোনা গিয়েছে। এই স্মার্ট স্টেথোস্কোপের বিশেষত্ব হল অনেকগুলি শব্দকে ফিল্টার করে এবং এটিকে বৈদ্যুতিন সংকেতে রূপান্তরিত করে সক্ষম। শুধু তাই নয় সংকেতটি স্মার্টফোন এবং ল্যাপটপে ফোনের কার্ডিওগ্রাম হিসাবে দেখা যাবে। এর ফলে চিকিৎসকরা এই স্মার্ট স্টেথোস্কোপের সাহায্যে করোনা আক্রান্তের কাছে না পৌঁছেই তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে পারবেন।