সারা দেশে করোনার গ্রাসে ২৮০৪৬ জন মানুষ। এখনও অবধি মৃত্যু হয়েছে ১৩০১ জনের। এমন পরিস্থিতির মোকাবেলা করতে বিশেষজ্ঞরা দিন-রাত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এর প্রতিষেধক তৈরি করার। এর জন্য চলছে নানান গবেষমামূলক পরীক্ষাও। তবে সম্প্রতি নতুন গবেষণায় শোনা গিয়েছে, করোনা আতঙ্কে নতুন দিশা দেখাতে পারে অ্যান্টাসিড। মাত্র ৪০ পয়সার এই ওষুধ কাবু করলেও করতে পারে করোনা ভাইরাসকে। আর এই ওষুধের নাম ফ্যামোটিডিন।  জানা গিয়েছে নিউ ইয়র্কে গবেষণামূলক পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে  ফ্যামোটিডিন এর প্রয়োগের ফলে আশানুরূপ ফল পাওয়া গিয়েছে।

আরও পড়ুন- এনআরএসে করোনা আক্রান্ত আরও ১৩, একজনের রিপোর্ট আসার আগেই মৃত্যু

ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে প্রধাণমতমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে দেশের সরকারি ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলির সঙ্গে। প্রধাণমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী এই  ফ্যামোটিডিন এর উৎপাদন আরও বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এমনকী এই ওষুধের গুণমান ও উৎপাদন দুই বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিশেষজ্ঞদের মত, করোনা আবহে হাইড্রোক্সিক্লোরেকুইনের মতো কয়েক দিনের এই ওষুধের চাহিদাও বৃদ্ধি পাবে। সব থেকে বড় বিষয় এই ওষুধ ভারতেই উৎপন্ন হয়। ফলে ওষুধের জন্য অন্য দেশের উপর নির্ভরশীল হতে হবে না।

আরও পড়ুন- মদ বিক্রি থেকে গাড়ি চলাচল, একাধিক বিষয়ে ছাড় লকডাউন ৩-এ, একনজরে দেখে নিন

এই ফ্যামোটিডিন হল গ্যাস, অম্বলের মত রোগ নিরাময়ে ব্যবহার করা হয়। করোনা সংক্রমণে যেহেতু পেট ব্যাথা ও অম্বলের মত উপসর্গ দেখা যাচ্ছে, সে ক্ষেত্রে এই ওষুধ কাজে লাগানো যেতে পারে বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা। আলাদা আলাদা নামে ভিন্ন ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা এই ওষুধ বিক্রি করেন। যেমন মার্কিন মুলুকেই এই ওষুধের নাম পেপসিড। তাই করোনা চিকিৎসায় কীভাবে এই ওষুধকে কাজে লাগানো যেতে পারে সেই সংক্রান্ত বিষয়ে ইতিমধ্যেই হয়ে গিয়েছে জরুরি বৈঠক। তবে এখনও অবধি শুরু মাত্র পরীক্ষামূলকভাবেই এই ওষুধ প্রয়োগ করা হবে আক্রান্তদের উপর। করোনা ঠেকাতে কতটা কার্যকরী হয়ে উঠতে পারে ফ্যামোটিডিন সেটাই দেখার।