আমাদের শরীরের ৭৫ শতাংশ জল দিয়ে গঠিত। ঘাম, শ্বাস এবং প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে জল বের হয় যা একটি শারীরিক প্রক্রিয়া। কিন্তু কখনও কখনও খুব তৃষ্ণার্ত বোধ হয় যার কারণে আমাদের বারবার জল পান করতে হয়। আসলে শরীরে জল শূন্যতার কারণে বারবার তৃষ্ণার সমস্যা দেখা দেয়। তবে অনেক সময় তৃষ্ণার কারণ ডিহাইড্রেশন নয়, ডায়েটের ফলেও বারবার তৃষ্ণার সমস্যা দেখা দিতে পারে। জেনে নিন এমন ৫ খাদ্য সম্পর্কে যা বাড়িয়ে তোলে জলের চাহিদা।


১. চা এবং কফি

চা এবং কফি বা ক্যাফিনের অতিরিক্ত পরিমাণে পান করা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হিসাবে বিবেচিত হয়। এছাড়াও এই ধরনের পানীয় বেশি মাত্রায় পান করলে, একজন ব্যক্তির বার বার প্রস্রাবের সমস্যা হতে শুরু করে। অতিরিক্ত প্রস্রাবের সমস্যাটি মানুষের দেহে জলর অভাব দেখা দেয়, যার কারণে বারবার তৃষ্ণার সমস্যা তৈরি হয়।


২. অ্যালকোহল

চা বা কফির মত অতিরিক্ত মাত্রায় অ্যালকোহল পান স্বাস্থ্যের জন্য খুব ক্ষতিকারক। আসলে, অতিরিক্ত মাত্রায় অ্যালকোহল গ্রহণের কারণে একজন ব্যক্তি বেশ কয়েকবার বমি শুরু করে। যা তার শরীরে জলের ঘাটতি সৃষ্টি করে। অতিরিক্ত মাত্রায় অ্যালকোহল গ্রহণের কারণে একজন ব্যক্তির প্রস্রাবের মত সমস্যাও শুরু হয় যা আপনার শরীরে জলর অভাব এবং ঘন ঘন তৃষ্ণার সমস্যা সৃষ্টি করে।


৩. লবণ 

যখন আপনি বেশি পরিমাণে সোডিয়াম খাদ্য গ্রহণ করবেন, তখন এটি আপনাকে আরও তৃষ্ণার্ত করে তোলে। এই ধরণের খাদ্য হজম করার জন্য প্রচুর পরিমাণে জল প্রয়োজন। আপনি যদি সাধারণ খাবারের চেয়ে বেশি মশলাদার খাবার খান তবে আপনার ঘন ঘন তৃষ্ণার সমস্যাও দেখা দিতে পারে।


৪. উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাদ্য

প্রোটিন সমৃদ্ধ ডায়েট সত্ত্বেও আপনি খুব প্রায়ই তৃষ্ণার্ত বোধ শুরু করেন। উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবারে নাইট্রোজেন সমৃদ্ধ। ফলে অনেকের ক্ষেত্রেই এই ধরণের খাদ্য ভাল ভাবে বিপাক করতে আরও জলর প্রয়োজন হয়। এ কারণেই যখনই কোনও ব্যক্তি উচ্চ প্রোটিনযুক্ত ডায়েটে থাকে তখন বেশিরভাগ সময় তৃষ্ণার্ত বোধ করে। এমন পরিস্থিতিতে জলর কম পরিমাণে গ্রহণের কারণে তাকে ডিহাইড্রেশন-এর মত সমস্যাও ভুগতে দেখা যায়।


৫. মিষ্টি-জাতীয় খাবার

যখন আপনি বেশি পরিমানে মিষ্টি জাতীয় খাবার বা পানীয় পান করেন তখন আপনার তৃষ্ণার সমস্যা দেখা দিতে পারে। মিষ্টি খাবার আমাদের দেহের ভিতরে একটি অ্যাসিডিক স্তর তৈরি করে যা দেহের এনজাইম ক্রিয়াকে নষ্ট করে দেয়। এর ফলে বারে বারে জল তেষ্টা পায়। এ ছাড়া কোল্ড ড্রিংক্সও ডিহাইড্রেশনের একটি বড় কারণ।