বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া-রোগী মৃত্যু ঘিরে রণক্ষেত্রের আকার নিল নার্সিংহোম চত্বর। অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর মৃত্যু ঘিরে দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। প্রসূতির মৃত্য়ুতে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে নার্সিহোম চত্বরে ভাঙচুর চালায় রোগীর আত্মীয়রা। নার্সিংহোম চত্বরে চিকিৎসার সরঞ্জাম ভাঙচুর করা হয়। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

আরও পড়ুন-না ফেরার দেশে 'পুলু', সৌমিত্রর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ পৈত্রিক ভিটে কৃষ্ণনগর

ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বাঁকড়ায়। জানাগেছে, চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত বছর চব্বিশের ভারতী সিং বাঁকড়ার মিশ্র পাড়াক বাসিন্দা। তাঁকে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় বাঁকড়ার ওই নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁকে ওি নার্সিংহোমে ভর্তি করিয়ে নেন চিকিৎসকরা। সেখানেই তিনি সন্তান প্রসব করেন ওই গৃহবধূ। নার্সিংহোমের তরফে জানানো হয় শিশু ও মা দুজনেই সুস্থ আছে। রবিবার সকাল থেকে পেটে অসম্ভব ব্যাথা অনুভূব করতে শুরু করেন ভারতী। চিকিৎসকরা তাঁকে ইঞ্জেকশন দেওয়ার পরই মৃত্যু হয় ভারতীর।

আরও পড়ুন-'এই শূন্যতা পূরণ করা কঠিন', সৌমিত্রর প্রয়াণে গভীর শোকপ্রকাশ রাজ্যপালের

রোগী মৃত্যুর খবর পরিবারের কাছে পৌঁছতেই উত্তেজনা ছড়ায় নার্সিংহোম চত্বরে। অভিযোগ, রোগীর এই মুর্মূর্ষু অবস্থা সম্পর্কে পরিবারের কাউকে জানানো হয়নি। এমনিকি রোগীর সঙ্গে তাঁর আত্মীয়কে থাকতে দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ। ওই নার্সিংহোমে কোনও চিকিৎসক নেই, শুধু নার্স দিয়ে চিরিৎসা করানো হয় বলে দাবি মৃত রোগীর আত্মীয়দের। চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে নার্সিংহোম চত্বরে ভাঙচুর চালায় রোগীর আত্মীয়রা। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয় যে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে পৌছায় বাঁকড়া থানার পুলিশ। রোগীর পরিজনদের উপর লাঠি চালানো হয় বলে অভিযোগ।