বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে একাধিক রাস্তা। মঙ্গলবার হাওড়ার মতো জনবহুল জায়গা পরিণত হয়েছে জনশূন্য় প্রান্তরে।  কাজিপাড়া থেকে জিটি রোড ধরে হাওড়া ময়দান পর্যন্ত সব রাস্তা বন্ধ। করোনা সংক্রমিত এলাকায় গার্ডওয়াল বসিয়েছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, রেডস্টার জোন হিসাবে চিহ্ণিত হাওড়ায় শিবপুর এলাকায় বহু ব্যাঙ্কের শাখা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ব্যাঙ্কের কারণে সংক্রমণ যাতে না ছড়ায় তাই এই কাজ করা হয়েছে। 

এই মুহূর্তে কলকাতার সেরা ১০ খবর,যা আপনাকে ভাবাবেই.

এদিন সকাল হতেই গুজব রটে যায়। হাওড়ায় সব ব্যাঙ্ক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যদিও পরে খবর পাওয়া যা বিষয়টি সত্য নয়। করোনা যুদ্ধে নেমে রবিবার থেকেই সংক্রমিত এলাকায় দোকান বাজার বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। সোমবার হাওড়ার অন্যতম সবচেয়ে বড় কেনাবেচার বাজারগুলি কার্যত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এছড়াও অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দোকান  বেলা বারোটার মধ্যেই বন্ধ করে দেওয়া হয়। 

কলকাতার ১১২টি রাস্তা কনটেইনমেন্ট এরিয়া, জানুন কি এই এরিয়া.

প্রশাসন থেকে চ্যাটার্জিহাট বাজার সরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে ডুমুরজলার মাঠে । রামরাজাতলার বাজার সরিয়ে দেওয়ার কথা হচ্ছে শঙ্করমঠের মাঠে। বড় এলাকায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে লোকে যাতে বাজার করতে পারে তাই এই সিদ্ধান্ত। সরকারি ভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে সকাল আটটা থেকে বেলা বারোটা পর্যন্ত অত্যাবশ্যকীয় জিনিসের দোকান খোলা থাকবে। কোনও দোকান তারপরেও খোলা দেখলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমরা সুরক্ষিত নই, এবার মুখ খুললেন মেডিক্যাল কলেজের ইনটার্নরা.

এদিকে প্রশাসনের ছাড়পত্র পেয়ে আপাতত হাওড়ার বেশকিছু বেকারিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাজ শুরু হয়েছে। এবার থেকে পাউরুটির জোগানে সমস্যা হবে না এলাকায়। তবে সব ক্ষেত্রেউ রাখা হয়েছে কড়া নজরদারি।