মহারাষ্ট্রের করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পরিস্থিতি ক্রমশই উদ্বেগজনক হয়ে উঠেছে। দেশে আক্রান্তের ক্রম তালিকায় দীর্ঘদিন ধরেই প্রথম স্থান দখল করে রেখেছে এই রাজ্যটি। আক্রান্তের সঙ্গে পাল্টা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। প্রচুর মানুষের মৃত্যু হওয়ায় একদিন যেমন হাসপাতালের মর্গে পড়ে রয়েছে বেওয়ারিশ মৃতদেহ তেমনই অনেকেই স্বজন হারানো ব্যক্তি খুঁজে বেড়াচ্ছের আত্মীদের দেহ। এই পরিস্থিতি সামনে এল আরও এক মর্মান্তিক ঘটনা। ৮দিন নিখোঁজ থাকার পর সরকারি হাসপাতালের শৌচাগার থেকে উদ্ধার হল ৮২ বছরের করোনা আক্রান্ত রোগীর নিথর দেহ। 

মৃতের নাতি জানিয়েছেন, দোশরা জুন থেকেই নিখোঁজ ছিলেন তাঁর ঠাকুমা। করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ায় তাঁর চিকিৎসা চলছিল জলগাঁও-র সরকারি সিভিল হাসপাতালে। হাসপাতাল থেকেই নিখোঁজ হয়ে যান আশীতিপর বৃদ্ধা। অনেক খোঁজাখুঁজির পরেও কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি তাঁর। এই অবস্থায় হাসপাতালের কোনে সিঁড়ির নিচে থাকা একটি শৌচাগার থেকে উদ্ধার হয়েছে তাঁর নিথর। মৃতার আত্মীয়রা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকেই দায়ি করেছেন। 

এই ঘটনাকে সামনে এনে উদ্ধব ঠাকরে প্রশাসনের বিরুদ্ধে রীতিমত সরব হয়েছন বিজেপি নেতা কৃর্তী সোমাইয়া। তিনি বলেন,এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। মৃতের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে বিচারের দাবিতে সরব হয়েছে। মৃতের পরিবার বিচার পাবে বলেও দাবি করা হয়েছে। পাশাপাশি তীব্র সমালোচনা করা হয়েছে উদ্ধব প্রশাসনের। 

আনলক পর্বে চোরা স্রোতের মত বাড়তে পারে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া, বড় বিপদের ইঙ্গিত বিশেষজ্ঞদের ...

মাস্কের ভুল ব্যবহারে করোনা বিপদ বাড়তে পারে, যে সাধারণ ভুলগুলি হয়ে থাকে শুধরেনিন ...

'করোনা এক্সপ্রেস' নিয়ে নীরবতা ভাঙলেন মমতা, বললেন ওটা 'জনতার কথা' ...

এটাই প্রথম ঘটনা নয়। এর আগে ৮০ বছরের করোনা আক্রান্ত এক রোগী সরকারি হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন। এক দিন পর বোরিভালি স্টেশন থেকে উদ্ধার হয় তার নিথর দেহ। 

সম্প্রতী মুম্বইয়ে ৬টি মৃতদেহ অবৈধভাবে দাহ করা হয়েছে। অনেক পরিবারেই আবার স্বজনের দেহ না পেয়ে ক্ষোভ আর হতাশায় ফুঁসছেন। 

মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের ৯০ হাজারের বেশি। ইতিমধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজারেরও বেশি মানুষের।