যে কোনও রকম আক্রমণ প্রতিহত করার জন্য তৈরি হয়েছে ভারত। মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলনে জানিয়েছে দেশের সেনা প্রধান এমএম নারাভানে। তিনি বলেন  ভারতের সেনা বাহিনী সবধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত। তিনি বলেন গত বছর দেশের কাছে সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল কোভিড ১৯ ও উত্তর সীমান্তের পরিস্থিতি। আর সেখানে পাকিস্তানের সঙ্গে চিনও হাত মিলিয়ে ভারতকে হুমকি দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। তবে ভারতীয় জওয়ানরা সমস্ত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

নারাভানে বলে ভারতীয় সেনা বাহিনী উত্তর সীমান্তে রাষ্ট্রীয় সচেতনতার বজায় রেখেছে। শীতকালেও সীমান্ত রক্ষার কারণে ভারতীয় সেনা জওয়ানরা মোতায়েন রয়েছে। তিনি আরও বলেন, ভারত শান্তিপূর্ণ সমাধানের চেষ্টা করছে। তবে  যেকোনও রকম পরিস্থিতিতে ভারতীয় বাহিনী লড়াইয়ের জন্য তৈরি বলেও জানিয়েছেন তিনি। লাদাখের সংঘর্ষ স্থান সংলগ্ন এলাকায় পরিকাঠামো তৈরি করেছে। বেশ কয়েকটি পরিকাঠামো আবার তৈরি হয়েছে পাকিস্তানের রাস্তার পাশে।   তাই শুধু চিন নয়, পাকিস্তানও ভারতকে ক্রমাহত হুমকি দিয়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি। তিনি বলেন, পাকিস্তান এখনও পর্যন্ত সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপকে রাজনীতির জুড়ে দিয়েছে। কিন্তু আগামী দিনে ভারত এজাতীয় কার্যকলাপ বরদাস্ত করবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 

ভোররাতে সেরাম ছেড়ে গন্তব্যে উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করোনা-টিকার, টিকা আসছে কলকাতায় ...

কৃষকদের ট্র্যাক্টর মিছিল 'অস্বস্তি' বাড়াবে দেশের, দিল্লির পুলিশের আবেদনে কী বলল সুপ্রিম কোর্ট ...

ভারতীয় সেনা প্রধানের কথায় পাকিস্তান ও চিন ক্রমাগত ভারতকে শক্তিশালী হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।  প্রতিবছরই পিপিলস লিবারেশন আর্মির সদস্যরা বেশ কিছু এলাকায় আসে। এবার প্রশিক্ষণ অঞ্চলগুলি খালি করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন যে চিনা সেনা তিব্বত মালভূমিতে এসেছিল তারা ফিরে দেছে। তবে এখনও পর্যন্ত দুটি দেশই সংঘর্ষ স্থান থেকে পুরোপুরি সেনা সরিয়ে নেয়নি। আর সেই কারণেই লাদাখ সীমান্ত স্থিতাবস্থায় কোনও পরিবর্তন হয়নি।