দেশে হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এরমধ্যে এই মারণ ভাইরাস প্রাণ কেড়েছে ২ জনের। পরিস্থিতি সামলাতে একধিক রাজ্য সরকার করোনাকে মহামারী ঘোষণা করে জরুরী অবস্থা জারি করেছে। বন্ধ করা হয়েছে স্কুল, কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, জিম। এরমধ্যেই প্রশাসনের চিন্তা বাড়িয়ে পঞ্জাব থেকে নিখোঁজ হয়ে গেল ৩৫৫ জন। এর প্রত্যেকেই করোনা আক্রান্ত দেশগুলি থেকে ফিরেছিলেন বলে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রক জানিয়েছে।

সরকারি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে শুক্রবার পর্যন্ত  করোনা আক্রান্ত দেশগুলি  থেকে পঞ্জাবে ফিরেছেন ৬,৬৯২ জন। এদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত ৬,০১১ জনকে চিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে। কিন্তু কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না ৩৫৩ জনের। শেষ পাওয়া খবর পর্যন্ত এখনও ৩৩৫ জনের কোন খোঁজ পায়নি প্রশাসন। তাঁদের অবস্থান নির্ধারণের চেষ্টা করা হচ্ছে। 

আরও পড়ুন: দেশে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত, স্টেডিয়ামগুলিকে হাসপাতাল বানানোর পরামর্শ

সরকার সূত্রে জানা গেছে অমৃতসর বিমানবন্দরে এখনও পর্যন্ত ৫৮,৪৯৪ যাত্রীর স্ক্যান  হয়েছে। এদের মধ্যে ৭ জনের শরীরে করোনার লক্ষণ দেখা গিয়েছে। 

 মোহালির আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৬,৪৪৭ জন যাত্রীকে পরীক্ষা করা হয়েছে। ওয়াঘা বর্ডার দিয়ে শুক্রবার এদেশে আসেন ৬,৮৯২ জন এবং গুরুদাসপুর দিয়ে দেশে ঢোকেন ১৬,৩৭৬ জন। এদের মধ্যে এক জনের শরীরে করোনার লক্ষণ রয়েছে।

এদিকে গত শুক্রবার করোনা আক্রান্ত দেশগুলি থেকে এদেশে ফেরা ৭ জন ব্যক্তি লুধিয়ানা থেকে নিখোঁজ হয়ে যায়। তাদের সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছে লুধিয়ানা পুলিশ। এদিকে করোনা আতঙ্কের জেরে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত পঞ্জাবের সমস্ত স্কুলে ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। 

আরও পড়ুন: মহারাষ্ট্রে আরও ২ করোনা আক্রান্তের খোঁজ, সাহায্যে চেয়ে নেতানিয়াহুর আবেদন মোদীর কাছে

মহারাষ্ট্রের নাগপুরে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে থাকা ৫ ব্যক্তিরও খোঁজ মিলছে না । শরীরে করোনার লক্ষণ থাকায় নাগপুরের মেয়ো জেলারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছিল তাদের। এদের মধ্যে একজনের রিপোর্ট নেগেটিভ আসলেও বাকিদের রিপোর্ট এখনও আসেনি। 

করোনা আতঙ্কের কারণে মহারাষ্ট্র সরকারও আগামী ৩০ মার্চ পর্যবন্ত রাজ্যে সমস্ত স্কুল, সিনেমাহল, জিমনেসিয়াম, সুইমিংপুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে।