উত্তপ্ত গালওয়ান পরিস্থিতি নিয়ে আবারও বসতে চলছে ভারত চিন উচ্চ পর্যায়ের সামরিক বৈঠক। সোমবার বৈঠক হওয়ার কথা। আর সেই বৈঠকে আলোচনা হতে পারে গালওয়ান ও প্যাংগন লেক সংলগ্ন ফোর ফিঙ্গার এলাকা নিয়ে।  সেনা সূত্রের খবর বর্তমান সীমান্ত  পরিস্থিতি নিয়েই উভয় দেশের মধ্য়ে আলোচনা হবে। সূত্রের খবর লেফট্যানেন্ট পদমর্যাদার আধিকারিকরা এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন। এবার  দেশের সামরিক আধিকারিকরা সীমান্ত পেরিয়ে চিনে দিকেই আলোচনায় বসছেন বলেও জানতে পারাগেছে। 


গত ৬ জুন দুই দেশের মধ্যে উচ্চ সামরিক পর্যায়ের বৈঠক হয়েছিল। সেই সময় দুই দেশের মধ্যে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়েছিল। সূত্রের খবর দুই দেশই বিষয়টি  নিয়ে ঐক্যমত্ত হয়েছিল। কিন্তু তারপরই সীমান্ত পরিস্থিতি বদলে যায়। দুই দেশের মধ্যে সীমান্ত উত্তাপ বাড়তে থাকে। আর গত সোমবার সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দুই দেশের সেনা। ৪৫ বছরে ভারত ও চিনের মধ্যে এটাই ছিল সবথেকে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। 

তবে আলোচনার পাশাপাশি ভারত চিন দুই দেশই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা সংলগ্ন এলাকায় সৈন্য সংখ্য বাড়াচ্ছে। পাশাপাশি কড়া নজরদারীর ব্যবস্থাও করা হয়েছে। ভারত চিন মেজর স্তরের শেষ বৈঠক হয়েছিল হত ৬ জুন। সেনা সূত্রের খবর  এখনও পর্যন্ত ভারতের কোনও দাবি মেনে নেয়নি চিন। উল্টে লাদাখ সীমান্তে চিন  প্রায় ১০ হাজার সৈন্য মোতায়েন করেছে বলে খবর। ভারত প্রথম থেকেই আলাপ আলোচনার মাধ্যমেই সীমান্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে উদ্যোগী হয়েছে। কিন্তু চিনের দিক থেকে এখনও পর্যন্ত তেমন কোনও ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। 

সোশ্যাল মিডিয়া তাঁকে 'হতাশ' করেছে, চরম পরিস্থিতি ঐক্যবদ্ধ থাকার আর্জি রতন টাটা

লাদাখের হিম শীতল বাতাসে যুদ্ধের উত্তাপ, এক সপ্তাহ পরে গালওয়ানে 'গরম হাওয়া' ..

সূত্রের খবর এদিনের বৈঠকে ভারত সরাসরি চিনের কাছে ৬ জুনে আলোচনা মোতাবেক কাজ করার প্রস্তাব দেবে। কারণ ওই দিনের বৈঠকেই দুই পক্ষ প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার বিষেয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। গত মাস থেকেই প্রকৃত নিয়নন্ত্রণ রেখা সংলগ্ন এলাকায় চিন এয়ার বেশ তৈরি করেছে। তৈরি হয়েছে বাঙ্কার। যা নিয়েই দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ উত্তেজনা বাড়তে শুরু করেছিল। সমস্যা সমাধানে কথাও বলেছিল দুই দেশ। কিন্তু তারপরেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গালওয়ান পরিস্থিতি। সেই উত্তপ্ত আবহাওয়া আবারও বৈঠকে বসতে চলেছে দুই দেশ। 

লাদাখ সংঘর্ষেই ভারতীয় সেনার অন্দরে পরিবর্তন, বদলে যেতে চলেছে দশক পুরনো নিয়ম ...