দেখতে ছোট্ট, কিন্তু প্রচন্ড শক্তিশালী হিসেবেই পরিচিত স্পাইস বোম্ব-২০০০। ইজরায়েল তৈরি করেছে এই ভয়ঙ্কর বিস্ফোরক। আগেই ভারতের হাতে ছিল এই অস্ত্র। তা ব্যবহারও করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। আবারই সেই স্পাইস বোম্ব ২০০০ ব্যবহার করতে পারে ভারত। তেমনই সংকেত দিচ্ছে ভারতীয় সেনা বাহিনী। সূত্রের খবর ইজরায়েলের কাছ থেকে আবারও ভয়ঙ্কর শক্তিশারী এই আগ্নায়াস্ত্র কিন্তে চলছে ভারত। 

সূত্রের খবর পাকিস্তানের ঢুকে বালাকোটে জঙ্গি শিবির গুঁড়িয়ে দিতে ভারতীয় বিমান বাহিনীর অন্যতম হাতিয়ার ছিল স্পাইস বোম্ব -২০০০। এক সমর বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন, এই বোমা নির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা ও স্থির দূরত্ব শক্রপক্ষকে ঘায়েল করতে সক্ষম। আকাশ থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরত্বে শত্রুর বাঙ্কার ও যেকোনও ভূগর্ভস্ত নির্মাণ সহজেই ভেঙে ফেলতে পারে। বোমার মধ্যে স্যাটেলাইট প্রযুক্তি আপগ্রেড করা থাকায় লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় না। বালাকোটে এইজাতীয় প্রচুর বোমা নিয়ে হামলা চালান হয়েছিল। আকারে ছোট হওয়ায় এই বোমা ব্যবহার করা অনেকটাই সোজা। খুব সহজেই বহন করা যায়। এই বোমা কিনতে ২০১৫ সালে প্রায় ৩০০ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছিল। 

দিনে দিনে আরও বেশি সংক্রমিত হয়ে উঠছে করোনাভাইরাস, ফ্লোরিডার গবেষণায় তেমনই ইঙ্গিত ...

মাস্ক পরতে বলায় রেগে আগুন ম্যানেজার, 'চরম শাস্তি'র সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল ...

ভারতীয় বিমান বাহিনী সূত্রের খবর স্পাইস -২০০০ মারাজ ২০০০ জেটগুলিতে ব্যবহার করা যায়। শত্রু পক্ষে ভূগর্ভস্থ বাঙ্কার ধ্বংস করতে ভারতীয় বিমান বাহিনীকে এগুলি ব্যবহারের ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। 

সীমান্ত বৈঠক চলাকালীন 'সবথেকে খারাপ পরিস্থিতির জন্য' তৈরি ভারত, গালওয়ানে মোতায়েন ৬টি টি-৯০ ট্যাঙ্ক ..

বর্তমানে পূর্ব লাদাখের বিস্তীর্ণ সীমান্ত জুড়ে ক্রমশই বাড়ছে উত্তেজনা। গাওয়ান সীমান্তে চিনা সেনার অনুপ্রবেশ প্রায় স্পষ্ট। বেশ কয়েকটি জায়গায় বাঙ্কারও তৈরি হয়েছে বলে সূত্রের খবর। স্যাটেলাইট ইমেজেও দেখা গেছে গালওয়ান নদী সংলগ্ন এলাকায় চিনা সেনার গতিবিধি। তাই বালাকোটের মতই জবাব দিতে কী ইজরায়েলের থেকে আবারও স্পাইস -২০০০ কিনতে চলেছে ভারত? এই বিষয়ে এখনই মুখ খুলতে নারাজ ভারতীয় বিমান বাহিনীর কর্তারা।