সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের যাবতীয় কর্মকাণ্ড, সরকারের সিদ্ধান্তের পাশাপাশি একান্ত ব্য়ক্তিগত মুহূর্ত নিজের অনুগামীদের সানে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বর্তমানে একজন রাষ্ট্রনেতা হিসাবে টুইটার হ্যান্ডেলে সবচেয়ে বেশি ফলোয়ার নিয়ে তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 

বর্তমানে টুইটার হ্যান্ডেলে নরেন্দ্র মোদীর ফলোয়ারের সংখ্যা ৫০ মিলিয়ন অর্থাৎ পাঁচ কোটি। তাঁর থেকে সামান্য খানিকটা এগিয়ে রয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ট্রাম্পের টুইটারে ফলোয়ারের সংখ্যা ৬৪ মিলিয়ন। আর এই তালিকায় সবচেয়ে শীর্ষস্থানে রয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। বর্তমানে বারাক ওবামার টুইটার ফলোয়ার সংখ্যা ১০৮ মিলিয়ন। 

দেশের কোনও নেতাই বর্তমানে নরেন্দ্র মোদীর ফলোয়ারের কাছাকাছি পৌঁছায়নি। এমনকী প্রাইম মিনিস্টার অফিস-এর বর্তমান ফলোয়ার সংখ্যা ৩০ মিলিয়নে পৌঁছেছে। প্রসঙ্গত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর টুইটার অ্যাকাউন্টটি কিন্তু প্রতিদিনই আপডেট করা হয় নানারকম তথ্য এবং ছবির সম্ভারে। প্রধানমন্ত্রী তিনি কী কী করেন, বিদেশ সফরে কোথাও গেলে সেখানকার নানারকম তথ্য, তাঁর কর্মসূচীও তিনি তুলে ধরেন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে। 

ফের ভোলবদল ট্রাম্পের, কাশ্মীর ইস্যুতে মধ্যস্থতা করতে চাইলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

মানুষকে ভয় দেখিয়ে সন্ত্রাসবাদী পোস্টার প্রকাশ, উপত্যকায় পুলিশের জালে ৮ লস্কর জঙ্গি

কাশ্মীর নিয়ে অশান্তির জের, জঙ্গি হামলা হতে পারে দক্ষিণ ভারতেও, প্রস্তুত সেনাবাহিনী

নজির গড়ল ভারতীয় সেনা, বিশ্বের অষ্টম সর্বোচ্চ পাস-এ পা রাখল আট সদস্যের দল

এই প্লাটফর্মে তিনি প্রথম যোগ দেন ২০০৯ সালে,যখন তিনিগুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। এরপর ২০১৪ সালে প্রথমবারের জন্য দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার পর তাঁর জনপ্রিয়তা একটু একটু করে বাড়াতে থাকে।  টুইটারের পাশাপাসি ফেসবুকেও পেজ রয়েছে তাঁদের। ফেসবুক হ্যান্ডেলেও তাঁর প্রায় ৪৪ মিলিয়ন ফলোয়ার রয়েছে। গ্যালুপ ইন্টারন্যাশনাল-এর তরফে একটি সমীক্ষার ভিত্তিতেই এই আন্তর্জাতিক নেতাদের মধ্যে টুইটারে ফলোয়ারের তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী।