টানা দশ দিন ধরে দাম বেড়েছে পেট্রোলের। সঙ্গে বাড়ছে ডিজেলের দাম। দেশে কয়েক এলাকায় পেট্রোলের দাম লিটার প্রতি ১০০ টাকাও ছাড়িয়ে গেছে। অবেশেষ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে মুখ খুললেন দেশের পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। মঙ্গলবার তিনি বলেন আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম বৃদ্ধির কারণের দেশের পেট্রোলের দাম বেড়েছে। কিছু দিন পরে দাম কমে যাবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের মহামারিজনিত কারণে প্রভাব পড়েছে উৎপাদনের ওপর। যার ফলে বিশ্বব্যাপী তেল সরবরাহ হ্রাস পেয়েছে। 

 জনগণের ওপর চাপ কমাতে কেন্দ্রীয় সরকার একাধিক পদক্ষেপ নেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন পেট্রোলিমায় মন্ত্রী। তিনি বসেছেন তারা ধারাবাহিকভাবে জেএসটি কাউন্সিলকে পেট্রোলিয়াম পণ্যগুলিকে তাদের আওতায় আনার অনুরোধ জানিয়েছিলেন, কারণ তাতে সাধারণ মানুষের সুবিধে হবে। তবে পেট্রোলের ক্রমবর্ধমান মূল্য বৃদ্ধির কারণে সাধারণ ও মধ্যবিত্তের ওপর চাপ ক্রমশই বাড়ছে বলে অভিযোগ তুলছে বিরোধীরা। আগেই পেট্রোল ডিজেলের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার আর্জি জানিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি লিখিছেলিন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী। যদিও প্রধানমন্ত্রী কারও সমালোচনা না করে বলেছেন আগের সরাকরগুলি যদি পেট্রোলেরক্ষেত্রে স্বনির্ভর হওয়ার দিকে যদি বেশি মনোনিবেশ করতে তাহলে মধ্যবিত্তের ওপর অতিরিক্ত বোঝা চাপত না। মোটের ওপর জ্বালানি তেল নিয়ে ধীরে ধীরে উত্তাপ বাড়ছে দেশের জাতীয় রাজধানীতে। এই অবস্থায় পেট্রোলের দাম ধীরে ধীরে কমে যাবে বলেও ইঙ্গিত দিলেন মন্ত্রী। 

পেট্রোলের দাম নিয়ে উদ্বেগ, জনগণের দুর্দশা আর সরকারের লাভ নিয়ে মোদীকে লম্বা চিঠি সনিয়ার ...

দেশ গঠনে গুরু দায়িত্ব রয়েছে IIT-র, সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তিনটি মন্ত্রের কথাও বললেন নরেন্দ্র মোদী ...

পেট্রোল ও ডিজেলের দাম ১০ দিনেরও বেশি সময় ধরে একটানা বাড়ছে। রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ সহ বেশ  কয়েরটি এলাকায় লিটারপ্রতি পেট্রোল বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকায়। শনিবার মুম্বইতে পেট্রোলের দাম ছুঁয়েছিল ৯৭ টাকা লিটার। এর আগেও একাধিকবার পেট্রোলের দাম আকাশ ছুঁয়েছিল। কিন্তু কিছুদিন দাম বৃদ্ধির পর অবশ্য কিছুটা কমেও যেতে দেখা গেছে জ্বালানি তেলের দামকে। এবারও তেমনটাই হবে বলে অনেকে আশা করছেন।