আগামী ৫ বছর দিল্লি বিধানসভায় কারা রাজত্ব করবে, শনিবার তা নির্ধারণ করছেন রাজধানীবাসী। এবছর দিল্লিতে নতুন ভোটর ২.৩২ লক্ষ। যাদের মধ্যে রয়েছেন দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী ও কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীর একমাত্র নাতি রেহান বঢরাও। বাবা-মায়ের সঙ্গে গিয়েই জীবনে প্রথছমবার ভোট দিলেন রেহান, প্রয়োগ করলেন নিজের নাগরিক অধিকার।

আরও পড়ুন: পছন্দ হয়নি কনের শাড়ি, বিয়ে বাতিল করে দিল ছেলের পরিবার

কংগ্রেস মহাসচিব প্রিয়ঙ্কা পুত্র প্রথমবার ভোট দিয়ে দারুণ খুশি। দিল্লির লোধি এস্টেটের ১১৪ এবং ১১৬ নম্বর বুথে ভোট দিতে গিয়েছিলেন রেহান। সঙ্গে ছিলেন মা প্রিয়ঙ্কা ও বাবা রবার্ট বঢরাও। 

 

"গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অংশ হতে পেরে আমি দারুণ খুশি, প্রত্যেক নাগরিকের ভোট দেওয়া উচিত। আমি মনে করি সরকারি যানবাহন ব্যবহার করার অধিকার সকলের রয়েছে এবং ছাত্রদের জন্য তা ভর্কুকি দেওয়া হোক।" ভোট দেওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় বলেন রেহান। 

 

এদিন দিল্লি বিধানসভা নির্বাচেন ভোট দিয়েছেন রেহানের মামা রাহুল গান্ধীও। শনিবার সকালে অওরঙ্গজেব লেনে এনপি সিনিয়র সেকেন্ডারি স্কুলে ভোট দিতে যান রাহুল। নিজের ভোট দেওয়ার পর রেহানের দিদিমা তথা কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী সকলের কাছে নিজেদের  গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগের আবেদন করেন। দিল্লিবাসীকে ভোট দিতে অনুরোধ জানান প্রিয়ঙ্কা গান্ধীও। বলেন, "সকলে বাড়ি থেকে বের হয়ে ভোট দিন।"

আরও পড়ুন: ভোট যুদ্ধে মেজাজ হারালেন কংগ্রেস নেত্রী, আপ কর্মীকে চড় অলকা লাম্বার

২০১৫ সালের বিধানসভা নির্বাচনে দিল্লিতে একটি আসনও জেতেনি কংগ্রেস। ২০১৯ সালে চিত্রটা বদলাবে বলেই আশা শতাব্দী প্রাচীন এই দলের শীর্ষ নেতৃত্বের। যদিও আম আদমি ও বিজেপির তুলনায় কংগ্রেসের সরকার গড়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কম। তবে রাজধানীতে এবার হাতশিবির ভাল ফল করতে পারে কিনা তা জানার জন্য অবশ্য ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।