৭১ তম প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে সেজে উঠছে দিল্লির রাজপথ। রবিবার এখানে হবে চুচকাওয়াজ। হাজির থাকবেন প্রধানমন্ত্রী থেকে রাষ্ট্রপতি সহ দেশের সব প্রথমশ্রেণির রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা। এবছর প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বলসোনারো। 

প্রজাতন্ত্র দিবসের প্রাক্কালে জোরদার করা হয়েছে দিল্লির নিরাপত্তা। মোতায়েন করা হয়েছএ অতিরিক্ত এক হাজার নিরাপত্তারক্ষী। লালকেল্লা থেকে চাঁদনি চক হয়ে যমুনা খাদার পর্যন্ত বসানো হয়েছে ১৫০টির বেশি সিসিটিভ। 

আরও পড়ুন: ভূস্বর্গে অবশেষে চালু হল ইন্টারনেট, তবে আপাতত মিলবে টুজি পরিষেবা

রাজপথ থেকে লালকেল্লা পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার দীর্ঘ পথে রয়েছে বহুস্তরীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সংলগ্ন বহুতলগুলিতে চলছে তল্লাশি। হোটেলগুলিতেও তল্লাশি চালান হচ্ছে। সতর্ক করা হয়েছে দিল্লির ট্যাক্সি ও অটো চালকদের।

নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দেশজুড়ে চলছে বিক্ষোভ আন্দোলন। দিল্লির জনতাও সামিল হয়েছেন সেই আন্দোলনে। প্রজাতন্ত্রদিবসের দিন বিক্ষোভকারীরা যাতে কোনওরকম অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি না করে সেজন্য সজাগ রয়েছে পুলিশ। প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে কালো টুপি ও ব্যাজ যাতে কেউ না পরে আসতে পারে সেবিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন: ক্যারিব্যাগের জন্য নেওয়া হয়েছিল ১২ টাকা, ৫ লক্ষ জরিমানা দিতে হল বিগ বাজারকে

এরমধ্যে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি দিল্লিতে বিধানসভা ভোট। জেরকদমে প্রচার চালাচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলি। এই পরিস্থিতিতে প্রজাতন্ত্র দিবসে যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য শহরের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা ও মলগুলিতে পুলিশ পেট্রোলিং চলছে। বাড়তি নজরদারি চালান হচ্ছে ভিড়ে ঠাসা বাজার, রেলস্টেশন এবং বাসস্ট্যান্ডগুলিতে। 

এদিকে প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানের কারণে শনিবার সন্ধে ৬টা থেকে বিজয়চক থেকে ইন্ডিয়া গেট পর্যন্ত রাজপথে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শহরের মেট্রো স্টেশনগুলিতেও বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।