আবারও চরম বর্বরতার নিদর্শন তৈরি হল উত্তর প্রদেশে। একটি ১৩ বছরের দলিত কিশোরীকে গণধর্ষণ করে নৃশংশভাবে হত্যা করার অভিযোগ উঠল দুই দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে।  অভিযোগ নির্যাতিতার চোখ উপড়ে নেওয়া হয়েছিল আর জিভ কেটে নেওয়া হয়েছিল। উত্তর প্রদেশের রাজধানী লখনউ  থেকে ১৩০ কিলোমিটার দূরে লক্ষিমপুরখিরি জেলার পারকিয়া গ্রাম এই মর্মান্তিক ঘটনার সাক্ষী। যদিও পুলিশ চোখ উপড়ে নেওয়া ও জিভ কেটে নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। 

গত শুক্রবার স্থানীয় একটি আঁখের খেত থেকে নির্যাতিতার মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে বিকেল থেকে নিখোঁজ ছিল ১৩ বছরের মেয়েটি। পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘ খোঁজাখুঁজির পর গ্রাম সংলগ্ন একটি আঁখের খেত থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে মেয়েটির নিথর দেহ। নিহতের বাবা জানিয়েছেন, মেয়ের দেহ রক্তাক্ত অবস্থায় ছিল। গলায় ছিল ওড়নার ফাঁস। নিহতের বাবার অভিযোগ, চোখ উপড়ে জিভ কেটে নৃশংশভাবে তাঁর মেয়েকে খুন করা হয়েছে। 

২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত ৬৩ হাজারেও বেশি, উদ্বেগ বাড়াচ্ছে দক্ষিণের ৩ রাজ্য ...

যদিও পুলিশ এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। পুলিশের দাবি ময়না তদন্তের রিপোর্টে তেমন কোনও উল্লেখ নেই। যদিও বলা হয়েছে, মেয়েটিকে শ্বাস রোধ করে খুন করা হয়েছে। আর মৃতার শরীরে ধর্ষণের চিহ্ন স্পষ্ট রয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইতিমধ্যেই দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দুজনের বিরুদ্ধেই গণধর্ষণ আর হত্যার মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কোভ্যাক্সিন প্রথম দফার ফলাফলে নজর রাখুন, সেপ্টেম্বর থেকেই দ্বিতীয় পর্যায়ের মানবিক ট্রায়াল শুরু

নেহেরু-গান্ধীর তুলনা টেনে ভগৎ সিং-এর প্রসঙ্গ উত্থাপন, ব্রিটিশ ভারতের ছবি ভাইরাল ...

উত্তর প্রদেশের এই ঘটনা নিয়ে রীতিমত রাজনীতি শুরু হয়েগেছে। ঘটনার তীব্র নিন্দা করে সোশ্যাল মিডিয়া বার্তা দিয়েছেন মায়াবতী। কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন শাসকদল বিজেপিকে। তাঁর কথায় বিজেপি আর সামাজবাদী পার্টির শাসনের মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই।  অন্যদিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে ভীম সেনার প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদ বলেছেন, বিজেপির শাসনের অধীনে দলিত নিপীড়ন চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে। লক্ষীমপুর খিরি গ্রামের গণধর্ষণ ও হত্যা মামলায় মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগও দাবি করেছেন তিনি।