বিজেপি নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্বামী চিন্ময়ানন্দ-এর বিরুদ্ধে আনা হল ধর্ষণের অভিযোগ। অভিযোগকারী তরুণী একজন আইনের ছাত্রী। তার বাড়ি উত্তরপ্রদেশের শাহজাহানপুরে। এক সপ্তাহ ধরে কার্যত কোনও খোঁজ ছিল না তার। অবশেষে রাজস্থানে খোঁজ পাওয়া যায় তার। 

২৩ বছর বয়সী আইনের এই ছাত্রীর দাবি এক বছর ধরে চিন্ময়ানন্দ-এর হাতে যৌন নিগ্রহের শিকার হয়েছেন তিনি। সূত্রের খবর, তিন বারের মন্ত্রী চিন্ময়ানন্দ পরিচালিত ল কলেজেই আইন নিয়ে পড়াশোনা করছে সে। সেই একই কলেজে তার ভাইও পড়ে। এদিন সংবাদ মাধ্যমের সামনে দাঁড়িয়ে সে বলে। প্রায় এক বছর ধরে চিন্ময়ানন্দ তাঁকে যৌন নিগ্রহ ও শারীরিক নির্যাতনও চালিয়েছে। 

এই বিষয়ে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের কাছে অভিযোগ জানালেও কোনও লাভ হয়নি। তরুণীর দাবি উত্তরপ্রদেশ পুলিশ তার অভিযোগ নিতে চায়নি। তাই বাধ্য হয়েই সে দিল্লিতে এসে অভিযোগ দায়ের করেছে। তরুণীর অভিযোগের ভিত্তিতে দিল্লির লোধি রোড পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তা পাঠানো হয়েছে উত্তরপ্রদেশের শাহজাহানপুর পুলিশ স্টেশনে যারা তার অভিযোগ নিতে অস্বীকার করেছিল। 

ফের ভোলবদল ট্রাম্পের, কাশ্মীর ইস্যুতে মধ্যস্থতা করতে চাইলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

মানুষকে ভয় দেখিয়ে সন্ত্রাসবাদী পোস্টার প্রকাশ, উপত্যকায় পুলিশের জালে ৮ লস্কর জঙ্গি

কাশ্মীর নিয়ে অশান্তির জের, জঙ্গি হামলা হতে পারে দক্ষিণ ভারতেও, প্রস্তুত সেনাবাহিনী

নজির গড়ল ভারতীয় সেনা, বিশ্বের অষ্টম সর্বোচ্চ পাস-এ পা রাখল আট সদস্যের দল

সুপ্রিম কোর্টের তরফে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে ওই তরুণীর যাবতীয় বক্তব্য শুনেছে। এরপর সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে একটি বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করা হয়। ওই তদন্তকারী দল তাকে ১১ ঘণ্টা জেরা করেছে বলে জানিয়েছে সে। কিন্তু তার অভিযোগ এরপরও এখনও পর্যন্ত চিন্ময়ানন্দ-কে গ্রেফতার করা হয়নি। তবে এ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে চিন্ময়ানন্দ-এর আইনজীবী জানান যে, তাঁর মক্কেলের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তিনি বর্তমানে আধ্যাত্মিক কর্মকাণ্ডে নিযুক্ত রয়েছেন। তবে প্রয়োজনে অবশ্যই তিনি দিল্লি পুলিশের সামনে আসবেন।