ভূটানের পর এবার কি চিনের নজর পড়েছে অরুণাচল প্রদেশের দিকে? কারণ সম্প্রতি হাতে পাওয়া একটি উপগ্রহ চিত্র দেখে তেমনই করছেন গোয়েন্দারা। সূত্রের খবর উপগ্রহ চিত্রে দেখা যাচ্ছে অরুণাচল প্রদেশ সংলগ্ন বাম লা পাস থেকে মাত্র ৫ কিলোমিটার দূরে তিন তিনটি আস্ত গ্রাম তৈরি করেছে চিন। বাম লা পাস হল ভারত চিন ও ভূটান এই তিনটি দেশের সংযোগস্থলে অবস্থিত । তবে বিষয়টি নিয়ে নিয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করেনি নতুন দিল্লি। বিষয়টির ওপর নজর রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আধিকারিক। 

সংশ্লিষ্ট মহলের ধারনা পূর্ব লাদাখ সেক্টরে ভারতের সঙ্গে চলমান বিবাদের মধ্যে একটাই চিনের সবথেকে কঠোর পদক্ষেপ । একটি সূত্র বলছে মাত্র এক বছরের মধ্যে দুর্গম গিরিপথ এলাকায় গ্রামগুলি তৈরি করেছে চিন। এই ঘটনা সামনে আসার আগেই এক চিনা সংবাদিক দাবি করেছিলেন ভূটান সীমান্তের ভিরতে ঢুকে গ্রাম তৈরি করেছে চিন। যদিও বিষয়টি অস্বীকার করে সংশ্লিষ্ট দুটি দেশ। সাংবাদিকও তাঁর ট্যুইটটি সরিয়ে দিয়েছিলেন। চিন ও তিব্বত বিশেষজ্ঞ ব্রহ্ম চেলানি বলেছেন সীমান্তবর্তী এলাকাগুলিতে নিজের আধিপত্যের দাবি জোরদার করতেই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে চিন। 

MSP নিয়ে লিখিত প্রতিশ্রুতি দিতে রাজি কেন্দ্রীয়, কৃষকদের ডাকা বনধে সমর্থন কংগ্রেসের ...

মহামারি পরবর্তী বিশ্বে আরও বাড়বে ক্ষুদার রাজ্য, এখন থেকেই সাবধান করছে রাষ্ট্র সংঘ ...

সূত্রের খবর উপগ্রহ চিত্র বিশ্লেষণ করে বিশেষজ্ঞরা বলেছেন ২০২০ সালে ১৭ ফেব্রুয়ারি অরুণাচল সীমান্তবর্তী বাম লা পাস এলাকায় মাত্র একটি গ্রাম তৈরি হয়েছিল। তারপর মাত্র ৯ মাসের মধ্যেই বাকি দুটি গ্রামের পত্তন করা হয়েছে। কারণ ২৮ নভেম্বর ২০২০ সালে উপগ্রহ চিত্রে দেখা যাচ্ছে ওই এলাকায় তিনটি গ্রাম তৈরি হয়েছে। ২০ নভেম্বর উপগ্রহ চিত্রে পাওয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে একটি এলাকায় ২০টির বেশি আবাসন তৈরি করা হয়েছে। দ্বিতীয়তে রয়েছে ৫০টি পরিকাঠামো। আর তৃতীয় গ্রামে মাত্র ১০টি আবাসন তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি বাড়ি ছাদের রঙ লাল। ছিটমহল এলাকায় তৈরি হওয়া এই গ্রামগুলির জন্য রাস্তা তৈরি করা হয়েছে। অন্যান্য এলাকা থেকে বাসিন্দাদের এনে ওই গ্রামগুলিতে বসানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে বলেও সূত্র মারফত জানা গেছে।