শারজায় কাল মুখোমুখি হয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স এবং রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। শারজার ছোট মাঠে বইবে রানের বন্যা এমনটা আশা করেছিলেন বেশিরভাগ আইপিএল ভক্তরা। বিরাট কোহলি টসে জিতে ব্যাটিং করার পর শুরুটাও ভালোই করেছিলেন দেবদত্ত পাড়িকল এবং অ্যারণ ফিঞ্চ। কিন্তু পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার পর গতি হারায় ব্যাঙ্গালোর। বরুণ চক্রবর্তীর স্পিন খেলতে নাজেহাল হয়ে যান ব্যাঙ্গালোরের ব্যাটসম্যানরা। বিরাট কোহলি নিজে গোটা ম্যাচে একবারও সঠিক টাইমিং খুঁজে পাননি। শেষপর্যন্ত আরসিবির স্কোরকে ২০০ এর কাছাকাছি পৌঁছে দেন এ বি ডিভিলিয়ার্স। ৩৩ বলে ৭৩ রানের মারকাটারী ইনিংস খেলে যান তিনি। 

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুভমান গিল ছাড়া ব্যর্থ বাকি সকল নাইট ব্যাটসম্যানরা। গত ম্যাচের হিরো দীনেশ কার্তিক ফেরেন মাত্র ১ রান করে। বেঙ্গালুরু স্পিনারদের সামলাতে হিমশিম খান মরগ্যান, নীতিশ রানারা। অপ্রয়োজনীয় রান নিতে গিয়ে আউট হয়ে ফেরেন শুভমান গিল। উদানার প্রথম ওভারে রাসেল ঝড় শুরু হয়ে গিয়েছিল কিন্তু ২ টি চার ও একটি ছক্কা সহযোগে ১৬ রানে পৌঁছনো মাত্রই তার ইনিংস শেষ হয়ে যায় উদানার হাতেই। অল্পের জন্য অল আউটের হাত থেকে বাঁচলেও ৮২ রানে হেরে নেট রানরেট ধসে যায় কেকেআরের। 

এই ম্যাচে সুনীল নারিনের বদলে টম ব্যান্টনকে খেলিয়েছিল কেকেআর। ব্যাট হাতে বিন্দুমাত্র প্রভাব ফেলতে পারেননি তিনি। উল্টে নারিন না থাকায় মন্থর পিচে তার স্পিন বোলিংকে মিস করে কেকেআর। সেই ঘটনাই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয় কারণ আরসিবির দুই স্পিনার মাঝের ওভারে রান আটকে রাখা সহ উইকেট তুলে কেকেআরের কাজ অনেক বেশি কঠিন করে তুলেছিল।