আর মাত্র কয়েকদিনের অপেক্ষা। এরপরেই কৈলাশ থেকে ছেলেপুলেদের নিয়ে বাপির বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন 'মা'। শরতের মেঘলা আকাশ, শিউলি ফুলের গন্ধ জানান দিচ্ছে সে কথা। আর এরই মধ্যে নিজেদের নতুন নতুন চিন্তাভাবনা নিয়ে প্যান্ডেলের কাজ শুরু করেছে দুর্গা পুজো কমিটি এবং ক্লাবগুলি। কলকাতার পুজো মানেই থিমের দৌড়ে কে এগিয়ে কে পিছিয়ে। সেই থিমের ভাবনাকে মাথায় রেখে আবার নতুন থিমের চিন্তাভাবনায় সমাজসেবী সংঘ। 

আরও পড়ুনঃ পুজোর আড্ডা মানেই ম্যাডক্স স্কয়ার, সেখানেও শুরু হয়ে গিয়েছে প্রস্তুতি পর্ব

বরাবরই কলকাতার সেরা পুজোর তালিকায় থাকে সমাজসেবী সংঘ। তাদের মণ্ডপে আধুনিক চিন্তাভাবনা ও নতুনত্বের প্রয়োগ সর্বদাই মানুষের মনে আলাদাই জায়গা করে নিয়েছে। প্রতি বছরেই সমাজসেবী সংঘের প্যান্ডেলে ভরে যায় মানুষের ঢল। এবারেও কি একই ক্রমধারা বজায় রাখবে এই প্যান্ডেল তা দেখার অপেক্ষায় রয়েছে সকলে। 

এবছর তাদের দুর্গা পুজো থিমের মাধ্যমে সমাজের শ্রমিক শ্রেণীকে 'কুর্নিশ' জানাতে চলেছে সমাজসেবী সংঘ। তাই এবছর তাদের প্যান্ডেলের থিম 'কুর্নিশ'। সমাজের শ্রমিক শ্রেণীর মানুষরা বরাবরই লোকচক্ষুর আড়ালে থেকে নিজেদের কাজ চালিয়ে যায়। যদিও তারা সমাজে স্বীকৃতি পান না তবুও তাদের ছাড়া আমাদের সমাজ অচল। তাই তাদের কুর্নিশ জানানোর উদ্দেশ্যেই সমাজসেবী সংঘের পক্ষ থেকে এই উদ্যোগ। এবছর তাদের সমগ্র ভাবনায় রয়েছেন প্রদীপ দাস। সঙ্গে প্রতিমা তৈরিতে রয়েছেন পিন্টু শিকদার। এবং আলো ও আবহে রয়েছেন বুম্বা দত্ত ও দীপময় দাস।

আরও পড়ুনঃকেরালার 'মুরুগান টেম্পল' এবার মহম্মদ আলি পার্ক-এ 

গতবছরেও এক অসাধারন থিমের মাধ্যমে দর্শনার্থীদের আবেগতাড়িত  করেছিল এই ক্লাব। গতবছর পুজোয় তাদের থিম ছিল 'স্পর্শ'। এই থিমের মাধ্যমে  দৃষ্টিহীন মানুষদের আলোর দিশা দেখিয়েছিল তারা। মূলত দৃষ্টিহীন মানুষদের জন্যই তাদের ভাবনা ছিল অনুভবের দুর্গা পুজো।