বছর ঘুরে আবার নিজের বাপের বাড়ি ফিরছেন মা দুর্গা। আর তার আগেই ক্লাবগুলিতে শুরু হয়ে গিয়েছে সাজো সাজো রব। সেরার লড়াইয়ে কোন প্যান্ডেল এগিয়ে থাকবে এবং দর্শনার্থীদের বেশি মন কাড়বে সে চিন্তায় ব্যস্ত সমস্ত পুজো কমিটিগুলিই। এর মধ্যে মহম্মদ আলি পার্ক-এর পুজোকে ঘিরে থাকে এক অন্যরকম উত্তেজনা। বরাবরই রেকর্ডভাঙা ভিড় থাকে এই প্যান্ডেলে। তাই আবারও একটি নতুন চিন্তাভাবনা নিয়ে আসতে চলেছে সকলের পরিচিত মহম্মদ আলি পার্ক। তবে এবছরে তাদের পুজোর স্হান পরিবর্তন হচ্ছে। মহম্মদ আলি পার্কের কাছেই ফায়ার ব্রিগেডের মাঠে হচ্ছে এবছরের পুজো। মহম্মদ আলি পার্ক-এর মাঠটিতে যে জলাধার ছিল, তার প্রাচীরে ফাটল দেখা গিয়েছে তাই পুজোটি সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন এবার বাঙালিয়ানায় ধরা দেবে বেহালা দেবদারু ফটক, জেনে নিন তাদের পুজোর থিম   


এই বছর ৫১ বছরে পা দিল এই পুজো। প্রতি বছরই তারা নিত্য নতুন ভাবনা নিয়ে আসে। এবছর তারা আনতে চলেছে কেরালার বিখ্যাত 'মুরুগান মন্দির'। 'গডস ওনস কান্ট্রি' নামে পরিচিত কেরালা। তাই কেরালার মন্দিরের সেই সৌন্দর্যই ফুটে উঠবে এবার তাদের প্যান্ডেলে। প্রতিমাতে ও থাকছে বিশেষ চমক। এবছরের জল সংকটের পরিস্হিতি ফুটে উঠবে মুর্তি-র মধ্যে দিয়ে। প্রতি বছরের ন্যায় এই বছরও মহম্মদ আলি পার্ক-এর পুজোয় থাকবে মায়ের সঙ্গে দুই অসুর। এখানে মায়ের হাতে থাকে সাপ। প্রতি বছরই ভিড় উপচে পড়ে মহম্মদ আলি পার্ক-এর পুজোতে। তবে এবার জায়গা কিছুটা ছোট হয়ে গিয়েছে। যেহেতু তাদের পুজোর স্হান পরিবর্তন হয়েছে।  
এই বছর তাদের প্রতিমা-র দায়িত্বে রয়েছেন শ্রী কুশধ্বজ বেরা। মন্ডপ সজ্জার দায়িত্বে রয়েছেন প্রশান্ত পাল, অনেক বছর ধরেই তিনি এই পুজোর সঙ্গে যুক্ত। 

গত বছর তাদের মন্ডপে থিম ছিল 'পদ্মাবত'। এবছর ও তাঁরা আশাবাদী তাঁদের পুজো নিয়ে। 
যেখানে মহম্মদ আলি পার্ক-এর পুজোটি হত সেখান থেকে ঢিল ছোঁড়া দুরত্বে ফায়ার ব্রিগেডের মাঠে স্হানান্তরিত করা হয়েছে এবছরের পুজো। এই বছরের এই কেরালার মন্দিরের থিম কেমন হবে তা জানার জন্য অবশ্যই ঘুরে যেতে হবে এই বিখ্যাত পুজো থেকে।