খোদ মহানগরকে নিয়ে এবার ভয় বাড়ছে স্বাস্থ্য় দফতরের। একা কলকাতাতেই লাফিয়ে  বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। সোমবার পর্যন্ত কলকাতায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৬৫৯। মাত্র চব্বিশ ঘন্টায় মহানগরে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪১ জন। যার জেরে শহরে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭০০। যা চিন্তায় রাখছে কালকাতাবাসীকে।

কেন্দ্র বলছে ১৩৩, রাজ্য়ের হিসেবে করোনায় মৃত ৬৮

রাজ্য়ের সাম্প্রতিক করোনা চিত্র বলছে,পশ্চিমবঙ্গে করোনা ভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল এই কলকাতাতেই। এবার আক্রান্তের হিসেবেও সবাইকে ছাপিয়ে যাচ্ছে শহর। হিসাবে অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্য়ের মোট করোনা আক্রান্তের প্রায় অর্ধেক করোনা কেস পাওয়া গিয়েছে এই মহানগরেই।  গত চব্বিশ ঘন্টায় রাজ্যে কোভিডে মারা গিয়েছেন সাত জন। 

স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনের তুলনামূলক আলোচনায় দেখা গিয়েছে,গত চব্বিশ ঘন্টায় হাওড়ায় আক্রান্ত হয়েছেন আরও ২৪ জন। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনায় গত চব্বিশ ঘন্টায় আরও ৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৩৮। পূর্ব মেদিনীপুরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭। উত্তর চব্বিশ পরগনায় গত চব্বিশ ঘন্টায় আরও সাত জন আক্রান্ত হওয়ায় সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা হয়েছে ১৮৭। তবে রাজ্যের আট জেলায় এখনও পর্যন্ত কেউ করোনা আক্রান্ত হননি। এই জেলাগুলি হল, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, দুই দিনাজপুর, কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার।

দু'একটি রাজ্যের জন্য় একদিনে মৃতের সংখ্য়া সবথেকে বেশি,পশ্চিমবঙ্গের দিকে ইঙ্গিত স্বাস্থ্য় মন্ত্রকের.

এদিন নবান্নে স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্য়োপাধ্যায় জানান, নতুন করে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৫ জন। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৩৪৪। সোম থেকে মঙ্গলবারের মধ্য়েই মৃত্যু হয়েছে আরও সাত জনের। যার জেরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৮। 

১২ জন নার্সের করোনা পজিটিভ,এবার বন্ধ হল পার্কসার্কাসের শিশু হাসপাতাল

তবে রাজ্য় সরকার জানিয়েছে করোনা সংক্রমণের সঙ্গে অন্য কো-মর্বিডিটি নিয়ে যত জনের মৃত্যু হয়েছে, সেই সংখ্যাটা ১৪০। এই মুহূর্তে রাজ্য়ে করোনা চিকিৎসা চলছে ৯৪০ জনের। মঙ্গলবার বিকেলে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে এমনটাই জানান রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন স্বরাষ্ট্র সচিব জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৬ জন। ফলে এখনও পর্যন্ত মোট করোনামুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৬৪ জন।