'মানুষে মানুষে লড়াই নয়, রাজনৈতিক দলের সঙ্গে রাজনৈতিক দলের লড়াই নয়। এটা অদৃশ্য শক্রুর বিরুদ্ধে সমগ্র মানবজাতির লড়াই।' চিকিৎসকের ভিডিও টুইট করে করোনা নিয়ে বার্তা দেওয়া হল সোশ্যাল মিডিয়ায়। নেপথ্যে কি রাজ্যের শাসকদল? প্রশ্ন উঠেছে রাজনৈতিক মহলে।

আরও পড়ুন: কেন্দ্র বলছে ৫৭১, রাজ্য়ের হিসেবে বাংলায় করোনা অ্যাকটিভ ৪২৩

সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়বে না তো? রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে প্রশাসনের। নবান্নে দফায় দফায় বৈঠক করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা তো বটেই, মেদিনীপুর, হাওড়া-সহ রাজ্যের অনেক জায়গাতেই করোনা আক্রান্তদের পুরোদস্তুর হাসপাতালও চালু করেছে প্রশাসন। কিন্তু তাতে কি আদৌ কোনও লাভ হচ্ছে? বরং ভাইরাল ভিডি-তে সরকারি কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসার বেহাল দশাই প্রকাশ্যে চলে এসেছে। 

আরও পড়ুন: করোনা হাসপাতালে মোবাইল নিষিদ্ধ কেন, হাইকার্টে মামলা অর্জুনের

আরও পড়ুন: করোনার কোপ এবারের দুর্গাপুজোর বাজেটেও, বড়সড় কাটছাঁটের কথা জানালেন ক্লাবকর্তারা

করোনা সন্দেহে এমআর বাঙুর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আসানসোলের এক যুবক। হাসপাতালের একটি ভিডিও তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেন তিনি। ভিডিওটি ভাইরাল হতে বেশি সময় লাগেনি। ভিডিও-তে দেখা গিয়েছে, করোনা সন্দেহে যাঁরা সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন, তাঁদের শুয়ে থাকতে হচ্ছে একাধিক মৃতদেহের সঙ্গে!  শুধু তাই নয়, যিনি ভিডিওটি তুলেছিলেন, তাঁর দাবি, সামাজিক দূরত্ব না মেনে আইসোলেশন ওয়ার্ডে বেড রাখা হয়েছে কাছাকাছি! এই ভিডিওটিকে হাতিয়ার করে সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে বিরোধীরা। এই যখন পরিস্থিতি, তখনই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হল আরও একটি ভিডিও। 

কী বলা হয়েছে সেই ভিডিও-তে? ভিডিও-তে শর্মিষ্ঠা বন্দ্যোপাধ্যায় নামে  চিকিৎসক বলছেন, 'আমি কিন্তু করোনাকে ভয় পায়নি। নিয়মিত রোগী দেখছি। যদি আমরা, সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ডাক্তাররা সমন্বয় ও সহযোগিতা সাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করি, তাহলে এই ভাইরাসকে জয় করতে পারব।'  এখানেই নয়। ভিডিওটির ক্যাপশনে আবার ওই চিকিৎসককে ধন্যবাদও জানানো হয়েছে। সঙ্গে হ্যাশট্যাগ, 'BengalFightsCorona'।