করোনার কোপ এবারের দুর্গাপুজোর বাজেটেও। কারণ শহরে একাধিক নাম করা পুজো কমিটিগুলি করোনা সঙ্কটে শহরের পাশে সাহায্য়ের হাত রেখেছে। অনেকেই তাদের ফান্ড বা নিজেদের সঞ্চয় তুলে শহরের একাধিক এলাকায় ত্রাণ পৌছে দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে চলতি বছরে  দুর্গাপুজোর  বাজেট ছেটে ফেলেছেন পুজাকর্তারা। জেনে নেওয়া যাক  এবছরে শহরের কোন ক্লাবের বাজেটে কতটা ছাঁটা হয়েছে।

আরও পড়ুন, 'কাজে না আসলেই চাকরি থেকে বরখাস্ত', করোনা সঙ্কটে পুর চিকিৎসক-স্বাস্থ্য আধিকারিকদের কড়া বার্তা


জানা গিয়েছে, চলতি বছরে  দুর্গাপুজোর  বাজেটে একডালিয়া এভারগ্রীন ৫০ শতাংশ ছাঁটতে চলেছেন। চেতলা অগ্রনী ৮০ শতাংশ ছাঁটতে চলেছেন। বালিগঞ্জ কালচারাল ৬০ শতাংশ ছাঁটতে চলেছেন। ত্রিধারা সম্মেলনী ৭০ শতাংশ ছাঁটতে চলেছেন। তবে শ্রীভুমি স্পোর্টিং এবং যোধপুর পার্ক সার্বজনীন  পূজা বাজেট নিয়ে মিটিং হয়নি। নাকতলা উদয়ন সংঘ ৫০ শতাংশ ছাঁটতে চলেছেন । পঁচানব্বই পল্লী ৭৫ শতাংশ ছেঁটেছেন।  কলেজ স্কোয়ার  ৯০ শতাংশ ছাঁটতে চলেছেন। তবে শুধু কলকাতার নামী পুজা নয়, শহরের কমবেশি সব পুজোকমিটিই  তাদের বাজেটে অনেকাংশেই ছেঁটে ফেলেছেন।

আরও পড়ুন, মর্গের ভার কমাতে পুলিশকে চিঠি বাঙ্গুর হাসপাতালের, মৃত ৬ জনের নামের পাশে লেখা 'কোভিড পজিটিভ'


পূজা কমিটি গুলির অভিভাবক সুব্রত মুখার্জির দাবি, 'পূজা হবে,  তবে নমো নমো করে।জাঁকজমক কিছুই থাকবে না।' ত্রিধারা সম্মেলনীর ক্লাব কর্তা দেবাশিষ কুমার জানিয়েছেন 'পরিস্থিতির ওপর সব নির্ভর। মা যদি ঘট পূজা চান, তবে তাই হবে'। এমনকী অনেকেরই ধারণা, একডালিয়াতেও এবছর মূর্তি ছোট হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। কলকাতার পূজার অন্যতম আকর্ষণ শ্রীভুমি স্পোর্টিং এবছর ও নিয়ম মেনে পয়লা বৈশাখে মূর্তি তৈরীর জন্য বায়নার টাকা পাঠিয়েছেন কুমারটুলিতে। তবে ওই অবধিই। 'এখনও পূজা নিয়ে মিটিং হয়নি,  পূজা হবে-এটুকুই। এখন আমরা ত্রাণ নিয়ে ব্যস্ত,' জনিয়েছেন ক্লাব-কর্তা সুজিত বসু।

 

 মল্লিক বাজারের নিউরো হাসপাতালে করোনা পজিটিভ ২ শীর্ষ কর্তা, সংক্রমণের আশঙ্কায় চূড়ান্ত সতর্কতা

 এবার বেসরকারিতেও করোনা চিকিৎসায় মিলবে বিনামূল্য়ের পরিষেবা, হাসপাতালের খরচও দেবে রাজ্য সরকার

করোনায় রাজ্যে মৃতের সংখ্য়া বেড়ে ১৮, গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত আরও ৫১

  মেডিক্যালের ছোঁওয়া মানিকতলায়, করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসায় দমকল কেন্দ্রের ৩২ কর্মী কোয়রান্টিনে